kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৮। ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৩ সফর ১৪৪৩

ভাইয়ের বদলে অফিস করতেন ছোট ভাই

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



তিনি নিজে অফিস করতেন না। তাঁর বদলে অফিস করতেন ছোট ভাই। অফিসের কাজটিও ছিল স্পর্শকাতর। এ ধরনের প্রতারণা ও শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে চাকরি হারিয়েছেন নির্বাচন কমিশনের আইডিইএ প্রকল্পে কর্মরত একজন ডাটা এন্ট্রি অপারেটর। চাকরি থেকে অব্যাহতি দেওয়ার পর তাঁকে তাঁর ছোট ভাইসহ পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

গতকাল বুধবার নির্বাচন কমিশনের আইডিইএ প্রকল্প থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, অফিসে অনুপস্থিত থাকাসহ শৃঙ্খলাভঙ্গ ও প্রতারণা করে ছোট ভাইকে দিয়ে অফিস করানোর অভিযোগে কিশোরগঞ্জের নিকলী থানা নির্বাচন অফিসে আইডিইএ প্রকল্পে কর্মরত ডাটা এন্ট্রি অপারেটর মো. নূরে আলমকে চাকরি থেকে অব্যাহতি দিয়ে থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। এ ছাড়াও প্রতারণায় সহযোগিতার অভিযোগে অভিযুক্ত ডাটা এন্ট্রি অপারেটরের ছোট ভাই মাজহারুল ইসলামকেও পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। গত মঙ্গলবার মামলা দায়েরের পর তাঁদের শেরেবাংলানগর থানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এর আগে গত ২৮ মার্চ  কিশোরগঞ্জ জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশ্রাফুল আলম ডাটা এন্ট্রি অপারেটর মো. নূরে আলমের বিরুদ্ধে লিখিতভাবে দায়িত্বে অবহেলা, অনুমতি ছাড়া অফিসে অনুপস্থিত থাকা ও অফিস ত্যাগ করা এবং কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অমান্য করাসহ গুরুতর নানা অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২ মে প্রকল্প কার্যালয়ে সংযুক্ত করে ঢাকায় ক্যান্টনমেন্ট থানা নির্বাচন অফিসে দায়িত্ব পালনের জন্য নূরে আলমকে বদলি করা হয়। প্রকল্প কার্যালয়ে সংযুক্ত থাকাকালে তাঁর বিরুদ্ধে ছোট ভাই সানি মিয়াকে দিয়ে ক্যান্টনমেন্ট থানা নির্বাচন অফিসে প্রক্সি ডিউটি করানোর অভিযোগও পাওয়া যায়।



সাতদিনের সেরা