kalerkantho

মঙ্গলবার । ৬ আশ্বিন ১৪২৮। ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৩ সফর ১৪৪৩

অল্প বৃষ্টিতেই দীর্ঘ যানজট রাজধানীতে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিদায় নিচ্ছে জ্যৈষ্ঠ মাস। আসছে বৃষ্টি-বাদলের মাস আষাঢ়। তবে এর মধ্যে দেশের বিভিন্ন স্থানে বর্ষণ শুরু হয়ে গেছে। মাঝে দুদিন বিরতি নিয়ে রাজধানীতে বৃষ্টি ঝরা শুরু হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে মেঘে আকাশ কালো নেমে আসে বৃষ্টিধারা। ঘণ্টাখানেকের সেই মাঝারি মাত্রার বৃষ্টিতেই ঢাকার বিভিন্ন সড়কে পানি জমে যায়। বিভিন্ন স্থানে দেখা দেয় দীর্ঘ যানজট। ভোগান্তিতে পড়ে মানুষ।

ফুলবাড়িয়া, গুলিস্তান, জিরো পয়েন্ট, জাতীয় প্রেস ক্লাব, দৈনিক বাংলা, বিজয়নগর, পল্টন, কাকরাইল, শান্তিনগর ও মালিবাগসহ আশপাশ এলাকার সড়ক যানজটে স্থবির হয়ে থাকে দীর্ঘ সময়। বিকেল ৩টার পর থেকে সড়কে গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক হতে থাকে। বৃষ্টি থামার পর বাস সংকটে বিভিন্ন স্টেশনে অপেক্ষার প্রহর গুনতে হয় যাত্রীদের। অনেক বাসেই দাঁড়িয়ে যাত্রী বহন করা হয়।

অনেকক্ষণ ধরে গুলিস্তান মোড়ে দাঁড়িয়ে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন জয়েল হোসেন নামের এক তরুণ। এই প্রতিবেদককে তিনি বলেন, ‘ভাই, বাড্ডায় যেতে হবে। এদিকে বৃষ্টিতে গুলিস্তানের কিছু কিছু জায়গায় সড়কে পানি জমে আছে। ওদিকে বাসও চলছে কম। সড়কের পানি পেরিয়ে একাধিকবার বাসে ওঠার চেষ্টা করলাম। কিন্তু যাত্রীর চাপে বাসে দাঁড়ানোরও সুযোগ নেই।’

ভিক্টর ক্ল্যাসিকের যাত্রী আনোয়ার মিয়া বলেন, ‘গুলিস্তান থেকে রামপুরা আসতেই দীর্ঘ সময় যানজটে আটকে থাকতে হয়েছে। বৃষ্টির পর একদিকে জলাবদ্ধতা, অন্যদিকে যানজট। দুই মিলে দুর্ভোগের শেষ নেই।’

সিরাজ মিয়া নামের এক বাসচালক বলেন, ‘বৃষ্টির কারণে মানুষ সড়কের বিভিন্ন স্টেশনে আটকা পড়েছিল। বৃষ্টি শেষ হওয়ার পর তাঁরা সবাই একসঙ্গে রাস্তায় এসে দাঁড়িয়েছেন। তাই যাত্রীর চাপ বেশি। আবার রাস্তায় পানি জমে থাকায় গাড়িও কম টানতাছে।’

ফুলবাড়িয়ায় বাসের জন্য অপেক্ষায় থাকা যাত্রী কামাল মিয়া বলেন, ‘সড়কে পানি জমে আছে। এর মধ্যে আবার শত শত যাত্রী বাসের অপেক্ষায় রাস্তায় দাঁড়িয়ে আছে। বাস সংকটের কারণে স্ট্যান্ডিং পেসেঞ্জার নেওয়া হচ্ছে। অথচ ভাড়া ৬০ শতাংশ বেশিই দিতে হচ্ছে।’



সাতদিনের সেরা