kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

সাতক্ষীরায় লকডাউনে অনীহা জনসাধারণের

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি   

৭ জুন, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাতক্ষীরায় সাধারণ মানুষজন লকডাউন মানছে না। হাট-বাজারে মানুষের আনগোনা একেবারেই স্বাভাবিক। হালখাতা উৎসবও করছে অনেক প্রতিষ্ঠান। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের সময় দোকানপাট বন্ধ থাকে। অভিযান শেষে আবার সব কিছুই আগের মতো!

সাতক্ষীরায় এক সপ্তাহের লকডাউনের গতকাল ছিল দ্বিতীয় দিন। প্রথম দিন রাস্তাঘাটসহ হাট-বাজার ফাঁকাই ছিল। গতকাল দুপুর ১২টার দিকে সদর উপজেলার ঝাউডাঙ্গা বাজারে গিয়ে দেখা যায়, মানুষজন কেনাকাটায় ব্যস্ত। বেশির ভাগের মুখেই মাস্ক নেই। বাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন জানান, প্রশাসনের লোকজন এলে দোকান বন্ধ হয়। চলে গেলে সবাই আবার বেচাবিক্রি শুরু করে।

বাজারের পাইকারি কাপড়ের দোকানেও মানুষের ভিড়। বড়দল এলাকা থেকে কাপড় কিনতে আসা আলী আকবর (৫২) বলেন, ‘পাইকারি দোকান খোলা, তাই এসেছি। বন্ধ থাকলে তো আর এত দূর থেকে আমরা আসতাম না।’

আশাশুনির কাদাকাটি বাজারের ব্যবসায়ী রুহুল আমিন জানান, সাপ্তাহিক হাটবার থাকায় সকাল থেকে বেচাবিক্রি চলছে। হাজারো মানুষের সমাগম ঘটেছে হাটে। বেশির ভাগের মুখেই মাস্ক নেই। প্রশাসনের নজরদারিও নেই।

কলারোয়ার জয়নগর ইউনিয়নের সরসকাটি ও দেয়াড়া ইউনিয়নের খোর্দ বাজারে গতকাল ছিল সাপ্তাহিক হাটবার। এসব হাটেও সকাল থেকে মানুষের সমাগম ছিল স্বাভাবিক। এই দুই বাজারের সাতটি দোকানে গতকাল হালখাতা হয়েছে। শ্যামনগরের উপকূলীয় এলাকার হাট-বাজারের অবস্থাও একই। প্রশাসনের তৎপরতা নেই সেখানেও।

শহরের নিউ মার্কেট মোড়, পাকাপোলের মোড়, সদর থানা মোড়, খুলনা রোড, আমতলা, ইটাগাছ, লাবসা, নারকেলতলা মোড় ঘুরে দেখা যায়, সড়কের মাঝখানে বাঁশ বেঁধে ব্যারিকেড দিয়ে যানবাহন আটকানো হচ্ছে। বিভিন্ন সড়কে জব্দ করা ভ্যান উল্টিয়ে রাখা হয়েছে।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘মানুষকে আরো সচেতন হতে হবে। এখনো প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে অনেকেই বের হচ্ছে। পুলিশ কঠোর অবস্থানে রয়েছে।’

জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইন্দ্রজিৎ সাহা জানান, গত শনিবার সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত ৯৮ মামলায় ৬৮ হাজার ৬০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। গতকাল আদায় হয়েছে এর দ্বিগুণ।

এদিকে সাতক্ষীরায় করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর হার বাড়ছে। সদর হাসপাতালের করোনাবিষয়ক তথ্য কর্মকর্তা ডাক্তার জয়ন্ত কুমার ঘোষ জানান, গতকাল করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে দুজনের মৃত্যু হয়েছে।



সাতদিনের সেরা