kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

গুমের নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি চার সংগঠনের

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৮ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশি-বিদেশি চারটি মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশে গুমের প্রতিটি ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্তের পাশাপাশি গুম হওয়া ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছে। গুম হয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের স্মরণে আন্তর্জাতিক সপ্তাহ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার এশিয়ান ফেডারেশন অ্যাগেইনস্ট ইনভলান্টারি ডিজঅ্যাপেয়ারেন্স (এএফএডি), ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন ফর হিউম্যান রাইটস (এফআইডিএইচ) এবং দেশীয় সংগঠন মায়ের ডাক ও অধিকার এক যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি এ আহবান জানিয়েছে। উল্লেখ্য, প্রতিবছর মে মাসের শেষ সপ্তাহকে বিশ্বজুড়ে গুম হয়ে যাওয়া ব্যক্তিদের স্মরণে আন্তর্জাতিক সপ্তাহ হিসেবে পালন করা হয়।

যৌথ বিবৃতিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি গুমের ঘটনায় ভুক্তভোগীদের ন্যায়বিচার প্রাপ্তি নিশ্চিত করার আহবান জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশি কর্তৃপক্ষের অব্যাহতভাবে গুমের ঘটনা অস্বীকার এবং এই গুরুতর অপরাধের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে অনীহা নিন্দনীয়।

বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকারবিষয়ক আন্তর্জাতিক চুক্তি এবং নির্যাতনবিরোধী সনদে সই করেছে বাংলাদেশ। গুমের ঘটনাগুলো এসব চুক্তি ও সনদের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন। তাই জোরপূর্বক গুমের ঘটনাগুলো আন্তর্জাতিক আইনের লঙ্ঘন ও মানবতাবিরোধী অপরাধ হিসেবে বিবেচনার সুযোগ রয়েছে।

করোনা মহামারির মধ্যেও বাংলাদেশে গুমের ঘটনা বন্ধ হয়নি বলে বিবৃতিতে বলা হয়েছে। সেখানে বাংলাদেশি সংগঠন অধিকারের তথ্য তুলে ধরে বলা হয়েছে, ২০২১ সালের জানুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত দেশে ১১ জন গুম হয়েছেন।

যৌথ বিবৃতিতে বলা হয়, গুম হওয়া ব্যক্তিরা নির্যাতনের শিকার হয়ে থাকেন। কেউ কেউ বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের শিকার হন। তবে বেশির ভাগই বছরের পর বছর নিখোঁজ থাকে। আবার কাউকে কাউকে পরে সরকারি হেফাজতে পাওয়া যায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে গ্রেপ্তার হিসেবে।

সংগঠনগুলো বলছে, গুম হওয়া ব্যক্তিদের খোঁজ না পেয়ে অনিশ্চিত ও দুঃসহ জীবন কাটাতে হচ্ছে তাদের পরিবারের সদস্যদের।



সাতদিনের সেরা