kalerkantho

বুধবার । ৪ কার্তিক ১৪২৮। ২০ অক্টোবর ২০২১। ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আত্মীয়ের মেঝে খুঁড়ে মিলল শিশুর লাশ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৮ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



১০ বছর বয়সী শিশুটিকে গত বুধবার সন্ধ্যা থেকে খুঁজে পাচ্ছিল না তার পরিবার। গতকাল বৃহসপতিবার দুপুরে তারই এক আত্মীয়ের ঘরের খাটের নিচে মাটি চাপা দেওয়া অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি পরিবার ও এলাকাবাসীর। ঘটনাটি রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার বালুয়া মাসিমপুর ইউনিয়নের বুজরুক সন্তোষপুর গ্রামের।

এ ছাড়া নড়াইলের লোহাগড়ায় কিশোরীকে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ ও নীলফামারীর সৈয়দপুরে শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে। কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় শিশু (৭) ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত কিশোরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মিঠাপুকুরে ঘটনার পর অভিযুক্ত রাজা মিয়া (২০) বাড়ি ছেড়ে পালিয়েছেন। তবে পুলিশ রাজা মিয়ার নানি হালিমা বেগমকে (৪৫) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। রাজা পাশের চ্যাংমারী ইউনিয়নের শাহীন মিয়ার ছেলে। তিনি নানাবাড়িতে থাকেন। এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বুধবার সন্ধ্যায় শিশুটিকে চিপস কেনার জন্য কাছেই দোকানে পাঠান শিশুটির আত্মীয় রাজা মিয়া। শিশুটি ফিরে এলে তাকে ধর্ষণ করেন তিনি। পরে শিশুটি চিৎকার শুরু করলে রাজা তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ঘরের মেঝেতে পুঁতে রাখেন। শিশুটি নিজ বাড়িতে ফিরে না আসায় পরিবার তাকে খুঁজতে থাকে। এর মধ্যে বাড়ি ছেড়ে পালান রাজা। এক পর্যায়ে গতকাল ভোরে প্রতিবেশী রাজার ঘরের খাটের নিচে মাটি খোঁড়া অবস্থা দেখতে পান স্থানীয় লোকজন। এরপর মাটি খুঁড়ে শিশুর হাত দেখতে পান তাঁরা।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র নড়াইল, রংপুর (আঞ্চলিক), সৈয়দপুর ও পাকুন্দিয়া প্রতিনিধি]



সাতদিনের সেরা