kalerkantho

শনিবার । ৩১ আশ্বিন ১৪২৮। ১৬ অক্টোবর ২০২১। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ

বিচারপতির সংখ্যা কমছেই

এম বদি-উজ-জামান   

২৭ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগে বিচারপতির সংখ্যা একসময় ১১ থাকলেও তা কমে দাঁড়িয়েছে ছয়ে। চলতি সপ্তাহ শেষে এ সংখ্যা হবে পাঁচ। আর বছর শেষে হবে চার। এ বছর ৩০ ডিসেম্বর অবসরে যাবেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন। আর আগামীকাল ২৮ মে (শুক্রবার) বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকীর অবসরের দিন, কিন্তু এটি ছুটির দিন হওয়ায় আজ বৃহস্পতিবারই হচ্ছে তাঁর শেষ কর্মদিবস।

সংবিধানের ৯৬(১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, ৬৭ বছর বয়স পর্যন্ত বিচারপতি পদে থাকা যায়। বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী অবসরে যাওয়ার পর যাঁরা আপিল বিভাগে থাকছেন তাঁদের মধ্যে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ৩০ ডিসেম্বর, বিচারপতি মোহাম্মদ ইমান আলী ২০২৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ২০২৩ সালের ২৫ সেপ্টেম্বর, বিচারপতি মো. নূরুজ্জামান ২০২৩ সালের ৩০ জুন এবং বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ২০২৬ সালের জানুয়ারিতে অবসরে যাবেন।

আপিল বিভাগের প্রয়োজনীয়সংখ্যক বিচারপতির অভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হত্যা মামলার বিচারকাজ ঝুলে ছিল বছরের পর বছর। এ অবস্থায় মামলাটির বিচার নিষ্পত্তি করাকে সামনে রেখে ২০০৯ সালের ১৪ জুলাই আপিল বিভাগে চারজন বিচারপতি নিয়োগ দেওয়ার মাধ্যমে বিচারপতির সংখ্যা সাত থেকে বাড়িয়ে ১১ করা হয়। তবে ওই বছরের ডিসেম্বর থেকে বিচারপতির সংখ্যা কমতে থাকে। একে একে ছয়জন বিচারপতি অবসরে যাওয়ায় পরের বছর ২০১০ সালের অক্টোবরে আপিল বিভাগের বিচারপতির সংখ্যা হয় পাঁচ। পরে ২০১১ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি চারজন ও ১৬ মে দুজন বিচারপতি নিয়োগ দেওয়া হয়। কিন্তু অবসরে যান একজন। ফলে বিচারপতির সংখ্যা হয় ১০। এ বছর প্রধান বিচারপতি এ বি এম খায়রুল হকসহ তিনজন অবসরে যান। ফলে আপিল বিভাগে বিচারপতির সংখ্যা হয় সাত। পরের বছর অবসরে যান একজন। তবে ২০১৩ সালের ৩১ মার্চ চারজন নিয়োগ দেওয়া হলে বিচারপতির সংখ্যা হয় ১০। এরপর দুজন অবসরে গেলে ২০১৪ সালের ৩১ ডিসেম্বর বিচারপতির সংখ্যা হয় আট। ২০১৫ সালে অবসরে যান তখনকার প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেনসহ দুজন। বছর শেষে বিচারপতির সংখ্যা কমে হয় ছয়। এ অবস্থায় ২০১৬ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি তিনজন নিয়োগ দেওয়া হলে বিচারপতির সংখ্যা বেড়ে হয় ৯।

২০১৭ সালের ৭ জুলাই অবসরে যান দেশের প্রথম নারী বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা। তখনকার প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা একই বছরের ১০ নভেম্বর এবং পরের বছর ২ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহহাব মিঞা পদত্যাগ করেন। ফলে আপিল বিভাগে বিচারপতির সংখ্যা দাঁড়ায় চারে। এ অবস্থায় ওই বছরের ৮ অক্টোবর তিনজন বিচারপতি নিয়োগ দেওয়া হয়। ৯ অক্টোবর তাঁরা শপথ নেওয়ায় আপিল বিভাগে বিচারপতি দাঁড়ায় সাতজনে। গত বছরের ১৪ মার্চ অবসরে যান দেশের দ্বিতীয় নারী বিচারপতি জিনাত আরা। বিচারপতির সংখ্যা দাঁড়ায় ছয়ে। ৩ সেপ্টেম্বর নিয়োগ পান দুই বিচারপতি। নিয়োগের ১৬ দিনের মাথায় ১৯ সেপ্টেম্বর অবসরে যান বিচারপতি তারিক উল হাকিম। আর এ বছর ২৮ ফেব্রুয়ারি অবসরে যান একজন। ফলে বিচারপতির সংখ্যা আট থেকে কমে হয়েছে ছয়। এ অবস্থায় বিচারপতি আবু বকর সিদ্দিকী অবসরে গেলে সংখ্যাটি হবে পাঁচ।



সাতদিনের সেরা