kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩ কার্তিক ১৪২৮। ১৯ অক্টোবর ২০২১। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অনলাইন জুয়াড়িচক্রের চার সদস্য আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘স্ট্রিমকার’ নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জুয়া খেলার অ্যাপস পরিচালনা করে মাসে শতকোটি টাকা পাচার করে আসছিল একটি চক্র। বার্ষিক হিসাবে এই পাচারের পরিমাণ দাঁড়ায় প্রায় হাজার কোটি টাকা। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই চক্রের চার সদস্যকে আটক করেছে পুলিশের অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ)। আটক চারজন হলেন হোসেন রুবেল, জমির উদ্দিন, ইসলাম হৃদয় ও অনামিকা সরকার।

রাজধানীর বারিধারায় এটিইউ কার্যালয়ে গতকাল বুধবার আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান এটিইউর পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস) মোহাম্মদ আসলাম খান। তিনি জানান, এটিইউ দীর্ঘদিন ধরে অনলাইনে প্রতারণা ও ডিজিটাল মুদ্রাপাচার রোধে গোয়েন্দা নজরদারির ধারাবাহিকতায় স্ট্রিমকারের চার মাস্টারমাইন্ডকে আটক করেছে।

এসপি আসলাম জানান, স্ট্রিমকার অ্যাপসে গ্রুপ চ্যাট, গল্প, লিপসিং, ডান্স, কবিতা আবৃত্তিসহ বিভিন্ন ধরনের অনলাইন জুয়া খেলার অপশন রয়েছে। অ্যাপসটি বাংলাদেশে নিষিদ্ধ হলেও ভিপিএনের মাধ্যমে ঠিকই ব্যবহার হচ্ছে। এটি দেশে ব্যবহার প্রসারে হাতে গোনা কয়েকজন জড়িত থাকলেও না বুঝে ব্যবহার করছেন লক্ষাধিক বাংলাদেশি। আর এর মধ্য দিয়ে ডিজিটাল কারেন্সির মাধ্যমে বিপুল অর্থ বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে।

এটিইউর সাইবার অর্গানাইজড ক্রাইম বিভাগের পুলিশ সুপার মো. মাহিদুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশে এই অ্যাপসের ১১ জন এজেন্ট রয়েছে। তারাই ডিজিটাল বা ভার্চুয়াল কারেন্সি কেনাবেচা করেন। লক্ষাধিক বাংলাদেশি ইউজার বিকাশ, রকেট, নগদসহ বিভিন্ন মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে, হুন্ডি, ক্রিপ্টো কারেন্সি এবং বিদেশি একটি বেসরকারি ব্যাংকের মাধ্যমে ডিজিটাল বা ভার্চুয়াল কারেন্সি কিনছেন।



সাতদিনের সেরা