kalerkantho

রবিবার । ৬ আষাঢ় ১৪২৮। ২০ জুন ২০২১। ৮ জিলকদ ১৪৪২

সেরাম ইনস্টিটিউট নিয়ে সংসদীয় কমিটি

আইনগত ব্যবস্থা ভেবে দেখা দরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১০ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চুক্তি অনুযায়ী অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা না দেওয়ায় ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের বিরুদ্ধে আইনগত পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়টি ভেবে দেখতে বলেছে সংসদীয় কমিটি। গতকাল রবিবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে অন্যান্য দেশ থেকে করোনাভাইরাসের টিকা আনতে প্রচেষ্টা জোরদার করারও সুপারিশ করা হয়েছে, যাতে দেশে দ্বিতীয় ডোজ সম্পন্ন করা যায়। একই সঙ্গে দেশে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরন শনাক্তে উদ্বেগ প্রকাশ করে ভারতের সঙ্গে লকডাউন শক্তিশালী করার কথা বলেছে সংসদীয় কমিটি।

কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন, নুরুল ইসলাম নাহিদ, হাবিবে মিল্লাত ও কাজী নাবিল আহমেদ।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি মুহাম্মদ ফারুক খান সাংবাদিকদের বলেন, গত ফেব্রুয়ারি মাসেই সংসদীয় কমিটি একাধিক সোর্স থেকে টিকা আনার ব্যবস্থা করতে বলেছিল। কিন্তু কেন একটা সোর্স থেকে আনা হলো, সে বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়। মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এটা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিষয়। তবে তারা এখন একের অধিক সোর্স থেকে টিকা আনার চেষ্টা করছে। ভারত থেকেও জুলাইয়ে পাবে বলে আশা করছে। আমেরিকা থেকে পাওয়ার চেষ্টা করছে। রাশিয়া ও চীন থেকে আনার চেষ্টা তো করছেই।

তিনি বলেন, সেকেন্ড ডোজ কমপ্লিট করার জন্য ভারতের যে টিকা যুক্তরাষ্ট্রের কাছে অতিরিক্ত আছে, সেটা আনা যায় কি না, সেই উদ্যোগ দ্রুততার সঙ্গে নিতে বলেছি। ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট চুক্তি অনুযায়ী টিকা না দেওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করতে বলেছি।

কমিটির সভাপতি বলেন, ‘করোনার ভ্যাকসিন কেন আনা যাচ্ছে না, এ সম্পর্কে জানতে চাইলে মন্ত্রণালয় চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছে। আমরা বলেছি, শুধু চেষ্টা করলে হবে না, টিকা আনতে হবে।’