kalerkantho

মঙ্গলবার । ৮ আষাঢ় ১৪২৮। ২২ জুন ২০২১। ১০ জিলকদ ১৪৪২

অক্সফোর্ডের টিকা না পেলে দ্বিতীয় ডোজ সাময়িক বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অক্সফোর্ডের টিকা না পেলে দ্বিতীয় ডোজ সাময়িক বন্ধ

ছবি : ইন্টারনেট

জাহাজে নয়, বিমানেই আগামী ১২ মে দেশে আসছে চীনের উপহারের সিনোফার্মের তৈরি পাঁচ লাখ ডোজ করোনাভাইরাসের টিকা। এ ছাড়া চলতি মাসের শেষ নাগাদ কোভ্যাক্স থেকে আসছে ফাইজারের এক লাখ ৬২০ ডোজ।

তবে দেশে চলমান অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকার বাকি জোগান এখনো নিশ্চিত হয়। এই টিকা সময়মতো না পেলে দ্বিতীয় ডোজ সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, অক্সফোর্ডের টিকার জন্য ভারত ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ আরো কয়েকটি দেশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছে সরকার। এর মধ্যে কোনো দেশ থেকে অক্সফোর্ডের কিছু টিকা পাওয়া যেতে পারে। যদিও তা এখনো নিশ্চিত হয়নি। এর বাইরে বেসরকারি খাত থেকেও কেউ কেউ অক্সফোর্ডের টিকা আনার চেষ্টা করছে। চেষ্টা চলছে অন্যান্য টিকা আনারও।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক ও টিকা কমিটির সদস্যসচিব অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা গতকাল শনিবার রাতে কালের কণ্ঠকে এসব তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা চলাচ্ছি। এর পরও যদি হাতে থাকা টিকা শেষ হয়ে যাওয়ার আগে অক্সফোর্ডের টিকা জোগাড় করা না যায় তাহলে দ্বিতীয় ডোজ টিকাদান সাময়িক বন্ধ থাকবে। এতে কোনো সমস্যা হবে না। কারণ এমনিতেই ১২ সপ্তাহ পর্যন্ত সময় পাওয়া যাবে। ফলে বাড়তি ওই চার সপ্তাহ বা এক মাসের মধ্যে আশা করি অক্সফোর্ডের টিকা পেয়ে যাব। এর পরও যদি না পাওয়া যায় তখন বিকল্প পন্থায় যাব। এ ছাড়া যখন যে টিকা আসবে তখন সেই টিকা দেওয়ার কাজ চলতে থাকবে।’

জানা গেছে, রাশিয়ার টিকা আমদানি বা উৎপাদনের ক্ষেত্রে এখনো চুক্তিপত্র নিয়ে পর্যালোচনা চলছে, চূড়ান্ত হতে আরো কিছুটা সময় লাগবে।

গতকাল পর্যন্ত দেশের ৯২ লাখ ২১ হাজার ৩৮৭ জন করোনার টিকা নিয়েছেন। এর মধ্যে প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৫৮ লাখ ১৯ হাজার ৮৫৬ জন। ৩৪ লাখ এক হাজার ৫৩১ জন নিয়েছেন দ্বিতীয় ডোজ। সে হিসাবে এখনো ২৪ লাখ ১৮ হাজার ৩২৫ জন দ্বিতীয় ডোজ টিকা পাবেন। কিন্তু গতকাল টিকা দেওয়া শেষে হাতে আছে ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬১৩ ডোজ টিকা। যা দিয়ে আরো ১০ দিনের মতো টিকা দেওয়া যাবে। এরপর ঘাটতি থাকছে ১৪ লাখ ৩৯ হাজার ৭১২ ডোজ। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য ব্যবস্থাপনা শাখার তথ্য-পরিসংখ্যান বিশ্লেষণ করে এমন হিসাব পাওয়া গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক (এমআইএস) ডা. মিজানুর রহমানের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গতকাল সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন ৮৮ হাজার ১০৭ জন। এর মধ্যে ৫৪ হাজার ৮৭২ জন পুরুষ ও ৩৩ হাজার ২৩৫ জন নারী।