kalerkantho

রবিবার । ১০ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৫ জুলাই ২০২১। ১৪ জিলহজ ১৪৪২

গাছ কাটার বিরুদ্ধে দিনভর প্রতিবাদ সংস্কৃতিকর্মীদের

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৯ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কেটে খাবারের দোকান বানানোর ঘটনায় সরব সংস্কৃতিকর্মীরা। গান পরিবেশন, কবিতা আবৃত্তি, উন্মুক্ত ক্যানভাসে ছবি আঁকা ও গাছের শুকনো ডাল দিয়ে নানা প্রতিবাদী শিল্পকর্ম তৈরির মাধ্যমে বৃক্ষনিধনের প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তাঁরা।

গতকাল শনিবার দিনভর এসব আয়োজনের মাধ্যমে প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। এ ছাড়া প্রতিবাদী সভা-সমাবেশ করছে পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো। সাংস্কৃতিক প্রতিবাদ জানাচ্ছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের পরিবেশ উইং ‘পরিবেশ বীক্ষণ’। এ ছাড়া সমাবেশ করেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট। 

বৃক্ষনিধনের প্রতিবাদ জানিয়ে পুড়ে যাওয়া গাছের ডাল দিয়ে ইনস্টলেশন আর্ট বানিয়েছেন ভিজ্যুয়াল আর্টিস্ট জাকির হোসেন। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা চাই দেশে উন্নয়ন হোক। তবে প্রকৃতি ধ্বংস করে কোনো উন্নয়ন আমরা চাই না। উন্নয়ন প্রকৃতির সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ হতে হবে। গাছ কেটে উন্নয়ন হতে পারে না। উদ্যানে পুড়িয়ে ফেলা গাছের ডাল দিয়ে শিল্পকর্ম তৈরির মাধ্যমে গাছ কাটার প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

গাছ কাটা ঠেকাতে উদ্যানের ভেতরে ভবিষ্যতে কাটার জন্য ‘লাল কালি’ দিয়ে বাছাই করে রাখা গাছগুলোকে মুক্তিযোদ্ধাদের নামে নামকরণ করেছে ‘নোঙর বাংলাদেশ’ নামের একটি সংগঠন। প্রতিটি গাছে সাইনবোর্ড ঝুলিয়ে দিয়েছে তারা, যাতে গাছগুলো কাটা না হয়।

এদিকে শনিবার বিকেলে গাছ কাটার প্রতিবাদ জানিয়েছে পরিবেশবাদী সংগঠন ‘সবুজ আন্দোলন ছাত্র পরিষদ’। অবিলম্বে বৃক্ষকর্তনের এই প্রকল্প বাতিল করে পরিবেশ সংরক্ষণের দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। সংগঠনের কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অভিনেতা উদয় খান বলেন, ‘আমরা এমন একটা সময় পার করছি, যখন অক্সিজেনের অভাবে মানুষ মারা যাচ্ছে। হাসপাতালে অক্সিজেনের সংকট দেখা দিয়েছে। এই দুরবস্থার মধ্যেও আমরা অক্সিজেনের প্রয়োজনীয়তা বুঝতে পারছি না। নির্বিচারে গাছ কেটে সাবাড় করে ফেলছি। এই হীন কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ জানাচ্ছি। অবিলম্বে গাছ কাটার এই প্রকল্প বাদ দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’ 



সাতদিনের সেরা