kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

সংক্ষিপ্ত

‘খাদ্যশস্য সংগ্রহে কৃষক যেন হয়রানির শিকার না হন’

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৫ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



‘খাদ্যশস্য সংগ্রহে কৃষক যেন হয়রানির শিকার না হন’

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, কোনো কৃষক যেন খাদ্যগুদামে ধান দিতে এসে ফেরত না যান এবং কোনোভাবেই যেন কৃষক হয়রানি না হন। তিনি বলেন, চলতি বোরো মৌসুমে সঠিক সময়ে নতুন ফসল ঘরে তুলতে পারলে খাদ্যের কোনো সমস্যা হবে না। খাদ্যশস্য সংগ্রহে ধানকে প্রাধান্য দিতে হবে এবং কৃষক যেন কোনোভাবেই হয়রানির শিকার না হন। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর মিন্টো রোডের সরকারি বাসভবন থেকে রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের সঙ্গে অভ্যন্তরীণ বোরো সংগ্রহসংক্রান্ত অনলাইন মতবিনিময়সভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন তিনি। রাজশাহী ও রংপুর বিভাগের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উদ্দেশে মন্ত্রী আরো বলেন, কৃষকের স্বার্থের কথা চিন্তা করে, তাদের ন্যায্য মূল্য নিশ্চিত করতে ধান-চাল কেনার ক্ষেত্রে ধানকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। এবারের বোরো মৌসুমে ছয় লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন ধান সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে এবং ১১ লাখ ৫০ হাজার মেট্রিক টন চাল কেনা হবে। যা করোনা দুর্যোগ মোকাবেলায় সহায়ক হবে। মন্ত্রী বলেন, ‘করোনা মোকাবেলা করে খাদ্য বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ধান-চাল সংগ্রহ কার্যক্রম চালানোয় তাঁদের ধন্যবাদ জানাই।’ অনুষ্ঠানে খাদ্য সচিব নাজমানারা খাতুনসহ সংশ্লিষ্ট উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।