kalerkantho

সোমবার । ১১ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৬ জুলাই ২০২১। ১৫ জিলহজ ১৪৪২

জরিমানার পরও কেজি দরে বিক্রি তরমুজ-আনারস

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি   

৪ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান ও জরিমানার পরও বন্ধ হচ্ছে না কেজি দরে তরমুজ ও আনারস বিক্রি। গত ২৬ এপ্রিল কুষ্টিয়ায় এমএস রোডে চার তরমুজ ব্যবসায়ীকে জরিমানা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. বনি আমিন ও রিজু তামান্না। তাঁরা পিস হিসেবে তরমুজ বিক্রির নির্দেশ দিলেও ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরেই বিক্রি হচ্ছে তরমুজ।

এদিকে কুষ্টিয়ায় গত বছর থেকেই শুরু হয় কেজি দরে আনারস বিক্রি, যা এ বছরও অব্যাহত আছে। শহরের মজমপুর, এমএস রোড, বড়বাজার এলাকাসহ শহর ও শহরতলির বিভিন্ন দোকান, বাজার ঘুরে দেখা গেছে, ব্যবসায়ীরা রমজানের শুরু থেকে ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে তরমুজ এবং ৬৫ থেকে ৭৫ টাকা কেজি দরে আনারস বিক্রি করছেন। রমজানের আগে তরমুজের দাম ছিল ৩০ থেকে ৪০ টাকা কেজি এবং আনারস ছিল ৫০ থেকে ৬০ টাকা কেজি। 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খুলনা ও পটুয়াখালীর চরাঞ্চল থেকে কৃষকদের কাছ থেকে প্রতি পিস তরমুজ ৩০ থেকে ৫০ টাকা দরে কিনে এনে আড়তদাররা কেজিতে ২০ থেকে ৪০ টাকায় বিক্রি করছেন। আর শ্রীমঙ্গল ও রাঙামাটি থেকে ১০ থেকে ১৫ টাকা পিস কিনে ৬৫ থেকে ৭৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছেন। 

এদিকে নাটোর প্রতিনিধি জানান, নাটোরে ৪০ টাকা কেজি দরে বড় সাইজের তরমুজ বিক্রি করছে জেলা প্রশাসন। গতকাল সকাল ১০টায় আনুষ্ঠানিকভাবে তরমুজ বিক্রির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক মো. মশাহরিয়াজ। নিয়ম অনুযায়ী ছয় কেজির ওপরে তরমুজ ৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হবে। তবে জেলা প্রশাসনের বিপণিকেন্দ্র থেকে ছয় কেজির ওপরে তরমুজ ৪০ টাকায় কিনতে পারবে ক্রেতারা।



সাতদিনের সেরা