kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

ধর্ষণে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা সালিসে মীমাংসা!

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর   

৩ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



ফরিদপুরের সালথায় এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে এক তরুণীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এতে তরুণী আট মাসের অন্তঃসত্ত্বা। সম্প্রতি ঘটনাটি দুই লাখ টাকায় মীমাংসা করে দিয়েছেন স্থানীয় মাতবররা। তরুণীর গর্ভের সন্তান নষ্ট করার সিদ্ধান্তও দিয়েছেন তাঁরা।

ধর্ষণে অভিযুক্ত মো. ফেলা মাতুব্বর (৩০) সালথা উপজেলার ভাওয়াল ইউনিয়নের নারানদিয়া গ্রামের বাকা মাতুব্বরের ছেলে। ফেলা বিবাহিত। নির্যাতিত তরুণীর (২২) বাড়ি উপজেলার গট্টি ইউনিয়নে।

স্থানীয়রা জানান, নারানদিয়ায় এক আত্মীয়ের বাড়িতে তাঁর স্ত্রীর কাছে মাঝে মাঝে থাকতেন ওই তরুণী। এই সুযোগে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাঁকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন ফেলা মাতুব্বর। এতে তরুণী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েন। ঘটনা জানাজানি হলে স্থানীয় প্রভাবশালী নূরুল ইসলাম মাতুব্বর, আবুল খায়ের, বকুল মাতুব্বর ও সায়েম মোল্লাকে ম্যানেজ করে তরুণীর আত্মীয়-স্বজনকে মীমাংসার জন্য চাপ দেয় ফেলার পরিবার। সম্প্রতি পাশের কুমারপট্টি গ্রামে তরুণীর আত্মীয় বাড়িতে গোপনে বসে দুই লাখ টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি মীমাংসা করে দেন প্রভাবশালীরা। এই সালিসে তরুণীর গর্ভের সন্তান নষ্ট করার সিদ্ধান্তও দেন তাঁরা। এর পর থেকে তরুণী গর্ভের সন্তান নিয়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।



সাতদিনের সেরা