kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩ কার্তিক ১৪২৮। ১৯ অক্টোবর ২০২১। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

মামুনুলের ২৪ দিনের রিমান্ড আবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩ মে, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হেফাজতে ইসলামের সাবেক যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া তিন মামলায় ২৪ দিনের রিমান্ডে নিতে আদালতে আবেদন করেছে পুলিশ। গতকাল রবিবার নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানা পুলিশ এ আবেদন করে। রিসোর্ট কাণ্ডের জেরে হামলা ও ধর্ষণের অভিযোগে এসব মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঢাকায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) হেফাজতে সাত দিনের রিমান্ড শেষে আজ সোমবার মামুনুলকে ভিন্ন মামলায় রিমান্ডের আবেদন করা হবে বলে জানায় সূত্র। অন্যদিকে গত শনিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নাশকতার অভিযোগে হেফাজত নেতা জুনায়েদ আল কাসেমীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। একই দিন হেফাজতের সাবেক সহকারী মহাসচিব জাফর আহমেদসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে চট্টগ্রামের হাটহাজারী থানা পুলিশ।

সোনারগাঁ থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, ‘তিনটি মামলায় মোট ২৪ দিনের রিমান্ডে নিতে পুলিশের পক্ষ থেকে চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আবেদন করা হয়েছে। এ ছাড়া তাঁর স্ত্রীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করা হয়েছে।’ গত শুক্রবার সকালে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন তাঁর দাবি করা দ্বিতীয় স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা। মামুনুল হককে অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশের তদন্তে থাকা ঝর্ণার মামলায় ১০ দিন, ডিবির তদন্তে থাকা রিসোর্ট কাণ্ডের মামলা ও আওয়ামী লীগের অফিসে হামলা মামলায় পৃথকভাবে সাত দিন করে ১৪ দিন—সব মিলে মোট ২৪ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

এদিকে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থানার চুরি ও নাশকতার মামলায় সাত দিনের পর পল্টনের দুই মামলায় মামুনুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে ডিবি। রিমান্ড শেষে আজ সোমবার তাঁকে অন্য মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে ফের রিমান্ড আবেদন করা হবে। পাশাপাশি তাঁর ব্যাপারে আর্থিক জালিয়াতির তদন্ত চলছে বলে জানায় সূত্র।

সিআইডির জ্যেষ্ঠ পুলিশ সুপার জিসানুল হক জিসান জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ১৫টিসহ হেফাজতের সাম্প্রতিক নাশকতার ২৩ মামলার তদন্ত করছে সিআইডি। শনিবার ভোরে চারটি মামলার এজাহারভুক্ত আসামি জুনায়েদ আল কাসেমীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনি সদ্য বিলুপ্ত কমিটির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন।

এদিকে শনিবার সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন স্থাপনা পরিদর্শন করেছেন সিআইডির ডিআইজি হাবিবুর রহমান।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ‘যারা তাণ্ডবের ইন্ধনদাতা-পরিকল্পনাকারী তারা স্পটে থাকুক বা না থাকুক অবশ্যই আইনের আওতায় আসবে।’



সাতদিনের সেরা