kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৯ জুলাই ২০২১। ১৮ জিলহজ ১৪৪২

বিএসএমএমইউর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৩০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএসএমএমইউর ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

দেশে প্রথম সর্বোচ্চ চিকিৎসা বিদ্যাপীঠ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) আজ শুক্রবার ২৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। অধুনালুপ্ত আইপিজিএমআরকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তর করে ১৯৯৮ সালের ৩০ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। আজ এ দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে।

দিনটি উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার এক আলোচনাসভাও অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে এই বিশ্ববিদ্যালয়কে শিক্ষা, চিকিৎসা ও গবেষণায় বিশ্বমানে উন্নীত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন আলোচকরা। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক তাঁর বক্তব্যে করোনা সংক্রমণ প্রসঙ্গে বলেন, করোনা মোকাবেলায় লকডাউন একমাত্র সমাধান নয়। এটা স্বল্পতম সময়ের জন্য প্রযোজ্য। তা ছাড়া লকডাউনে মানুষের নানা সমস্যা হয়। করোনা মোকাবেলায় দীর্ঘমেয়াদি উপায় বের করে সেই পথগুলো নিশ্চিত করতে হবে। মাস্ক পরা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলাসহ সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। এর আগে সকাল সাড়ে ৮টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে জাতীয়সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি বলেন, চিকিৎসাবিজ্ঞানের ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় দেশে সেন্টার অব এক্সিলেন্স হিসেবে গড়ে উঠেছে। সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. শারফুদ্দিন আহমেদ বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর  হাত ধরেই এ দেশের স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়ন হয়েছে। 

অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক, প্রধানমন্ত্রীর স্বাস্থ্য ও সমাজ কল্যাণবিষয়ক সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোদাচ্ছের আলী, ইউজিসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ, বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি  ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী, আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যাবিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এম. ইকবাল আর্সলান প্রমুখ।



সাতদিনের সেরা