kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

ছাত্র অধিকার পরিষদ নেতা আকরামের মুক্তি দাবি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

৩০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেনকে অবিলম্বে মুক্তি দেওয়ার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি। একই সঙ্গে ভিন্নমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল, নির্বিচারে গ্রেপ্তার বন্ধ ও পরিষদের অন্য আটক নেতাকর্মীদের মুক্তি দিতে সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক মো. রাশেদ খান এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘বুধবার দিবাগত রাত ১টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আকরাম হোসেনকে সাত-আটজন তুলে নিয়ে যায়। ফ্লাইট বাতিল হওয়ার খবর শুনে আকরাম তাঁর দুলাভাইকে বিমানবন্দর থেকে আনতে গিয়েছিলেন। ২ নম্বর টার্মিনালের ৫ নম্বর গেটে ট্রলি হাতে হাঁটার সময় দুজন লোক এসে আকরামের পরিচয় জানতে চায়। মুহূর্তের মধ্যে আরো সাত-আটজন এসে কথা আছে বলে পাশে ডেকে আকরামকে গাড়িতে তুলে নিয়ে যায়। আমরা তাঁকে সুস্থ-স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরত চাই।’

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, গত ২৫ মার্চ থেকে এখন পর্যন্ত বিভিন্ন মামলায় বাংলাদেশ ছাত্র, যুব ও শ্রমিক অধিকার পরিষদের বিভিন্ন ইউনিটের ৫৩ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ক্ষোভ

আকরাম হোসেনকে বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তারের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। গতকাল ফ্রন্টের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সালমান সিদ্দিকী ও সাধারণ সম্পাদক প্রগতি বর্মণ তমা এক যৌথ বিবৃতিতে এই ক্ষোভ জানান।

বিবৃতিতে বলা হয়, ‘এভাবে নাগরিক অধিকার ভঙ্গ করে সাদা পোশাকে তুলে নিয়ে যাওয়া আওয়ামী ফ্যাসিবাদী সরকারের দমন-পীড়নমূলক আচরণের নগ্ন বহিঃপ্রকাশ। একদিকে মহামারি পরিস্থিতিতে সরকার জনগণের যথোচিত নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারছে না; অন্যদিকে সরকারের সমালোচনাকারীদের ওপর নেমে আসছে দমন-পীড়নের খড়্গ। একের পর এক চলছে গুম, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা-গ্রেপ্তার; পুলিশ ও ছাত্রলীগের যৌথ হামলার ঘটনা। স্বাধীনতার ৫০ বছরে দাঁড়িয়ে চলছে বাকস্বাধীনতা হরণের মতো ফ্যাসিবাদী আচরণ। এমতাবস্থায় সাদা পোশাকে আকরামকে তুলে নিয়ে যায় ডিবি।’



সাতদিনের সেরা