kalerkantho

সোমবার । ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৪ জুন ২০২১। ২ জিলকদ ১৪৪২

আর্টিকল নাইনটিন

সভা-সমাবেশের অধিকার নাগরিকের মৌলিক অধিকার

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে শ্রমিকদের বিক্ষোভে নিরস্ত্র শ্রমিকদের ওপর চালানো পুলিশের গুলিতে পাঁচজন শ্রমিক নিহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আর্টিকল নাইনটিন। গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক ওই মানবাধিকার সংস্থাটি জানায়, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভে পুলিশের গুলির ঘটনা মানবাধিকারের গুরুতর লঙ্ঘন এবং বাংলাদেশের সংবিধান স্বীকৃত শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অধিকার ক্ষুণ্ন করে। আর্টিকল নাইনটিন লক্ষ করছে, সাম্প্রতিক সময়ে আয়োজিত অনেক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ পুলিশের বাধায় পণ্ড হয়েছে। পুলিশ নিষ্ঠুরভাবে সভা-সমাবেশ দমন করছে, বিশেষ করে নিরস্ত্র ও শান্তিপূর্ণ সমাবেশে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের ঘটনা ঘটে চলেছে। 

আর্টিকল নাইনটিনের বাংলাদেশ এবং দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক পরিচালক ফারুখ ফয়সল বলেন, ‘আর্টিকল নাইনটিন শ্রমিকদের তাদের ন্যায়সংগত দাবি আদায়ের গণতান্ত্রিক অধিকারকে খর্ব করার জন্য পুলিশ বাহিনী কর্তৃক এজাতীয় অপ্রয়োজনীয় শক্তি প্রয়োগের নিন্দা করছে।’

তিনি বলেন, ‘‘আমাদের সংবিধানের ৩৭ অনুচ্ছেদে সুস্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, ‘জনশৃঙ্খলা বা জনস্বাস্থ্যের স্বার্থে আইনের দ্বারা আরোপিত যুক্তিসংগত বাধা-নিষেধ সাপেক্ষে শান্তিপূর্ণভাবে ও নিরস্ত্র অবস্থায় সমবেত হওয়ার এবং জনসভা ও শোভাযাত্রায় যোগদান করিবার অধিকার প্রত্যেক নাগরিকের থাকবে।’ সংবিধান প্রদত্ত এই অধিকার নিশ্চিত করার দায়িত্ব সরকারের, কিন্তু আমরা লক্ষ করছি এর উল্টো প্রবণতা।”

ফারুখ ফয়সল বলেন, ‘প্রতিবাদ করার অধিকার নাগরিক স্বাধীনতা এবং তা সরকারের জবাবদিহিকে নিশ্চিত করে। সরকারকে পুলিশের ক্রমবর্ধমান নিষ্ঠুরতার এবং পাঁচজন শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত এবং দায়ী ব্যক্তিদের আইনের আওতায় আনা নিশ্চিত করতে হবে।’