kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৩ আষাঢ় ১৪২৮। ১৭ জুন ২০২১। ৫ জিলকদ ১৪৪২

প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের অপেক্ষা

ধান-চালের দর ঠিক করতে ব্যর্থ খাদ্য মন্ত্রণালয়

চলতি বোরো মৌসুমে অভ্যন্তরীণ বাজার থেকে মোট ১৭ লাখ টন ধান ও চাল কেনার কথা আলোচনা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



চলমান বোরো মৌসুমে কত টাকা দরে ধান ও চাল কেনা হবে, সে সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি খাদ্য মন্ত্রণালয়। গতকাল বৃহস্পতিবার খাদ্যমন্ত্রীর সভাপতিত্বে হওয়া বৈঠকে দর চূড়ান্ত করার কথা ছিল।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, এখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে বৈঠকের খসড়া সিদ্ধান্ত পাঠানো হবে। তাঁর দেওয়া সিদ্ধান্ত আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে। এর আগে এ ধরনের সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হওয়ার ঘটনার কথা জানা যায় না।

পরিকল্পনা ও পরিধারণ কমিটির গতকালের ভার্চুয়াল সভায় কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমানসহ সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিবরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক সূত্র জানায়, চলতি বোরো মৌসুমে অভ্যন্তরীণ বাজার থেকে মোট ১৭ লাখ টন ধান ও চাল কেনার কথা আলোচনা হয়েছে। এর মধ্যে কৃষকদের কাছ থেকে ছয় লাখ টন ধান এবং মিল মালিকদের কাছ থেকে ১০ লাখ টন সিদ্ধ চাল ও এক লাখ টন আতপ চাল কেনা হবে।

গত বছর বোরো মৌসুমে ২৬ টাকা কেজি দরে ধান, ৩৬ টাকা কেজি দরে সিদ্ধ চাল ও ৩৫ টাকা কেজিতে আতপ চাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল খাদ্য মন্ত্রণালয়। কিন্তু বাজারে ধান ও চালের দাম সরকারি দামের চেয়ে বেশি থাকায় লক্ষ্যমাত্রার কাছাকাছিও পৌঁছা যায়নি। এ কারণে বর্তমানে ধান-চালের মজুদ তলানিতে ঠেকেছে।

বৈঠকে বর্তমান খাদ্য মজুদের অবস্থাকে অসন্তোষজনক বলে একাধিক মন্ত্রী মন্তব্য করেছেন বলে জানা গেছে। সূত্র মতে, এটা মূলত খাদ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যর্থতার কারণেই হয়েছে। এবার প্রতি কেজি ধান ২৭ টাকা এবং চাল ৪০ টাকা কেজি করে কেনার কথা আলোচনা হয়েছে। এখন প্রধানমন্ত্রী যে সিদ্ধান্ত দেবেন, সে অনুযায়ী আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবে খাদ্য মন্ত্রণালয়।



সাতদিনের সেরা