kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

৩৫ হাজার কোটি টাকা দাবি গরিবদের জন্য

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২৩ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনাভাইরাস পরিস্থিতি প্রতিনিয়ত খারাপ হচ্ছে। ফলে লকডাউনের সময়সীমা বাড়ানো হচ্ছে। কর্মহীন মানুষের অবস্থাও খারাপের দিকে যাচ্ছে। এ অবস্থায় দরিদ্রদের সহায়তায় সরকার ১০ কোটি ৫০ লাখ টাকা বরাদ্দ দিয়েছে। তবে এই বরাদ্দ বাড়িয়ে ৩৫ হাজার কোটি টাকা করার দাবি জানিয়েছে সচেতন নাগরিক সমাজ। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ‘লকডাউনে মানুষের হাহাকার বন্ধে ঘরে ঘরে খাদ্য পৌঁছাও’ শীর্ষক ‘নাগরিক প্রতীকী অবস্থান’ কর্মসূচিতে এ দাবি জানানো হয়।

কর্মসূচিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, অর্থনীতিবিদ রেজা কিবরিয়া, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রেহনুমা আহমেদ, আলোকচিত্রী শহিদুল আলম, জনসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইশতিয়াক আজীজ, রাষ্ট্রচিন্তার সদস্য রাখাল রাহা প্রমুখ বক্তব্য দেন।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘দেশের সোয়া দুই কোটি দরিদ্র মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী সাড়ে ১০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছেন। এতে প্রতিটি পরিবার সোয়া চার টাকা করে পাবে। এই টাকা দিয়ে মানুষ কী কিনতে পারবে? সাধারণ অসহায় মানুষদের সঙ্গে এজাতীয় মসকারা করছেন প্রধানমন্ত্রী? এই মসকরার দিন ফুরিয়ে আসবে। আমাদের একসঙ্গে এই সরকারের শোষণ-নির্যাতনের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।’

মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘করোনার শুরুর দিকে সরকার বলেছে, ৪৫ হাজার পরিবারকে আড়াই হাজার টাকা করে দেবে। এক বছরেও সে টাকা দেওয়া হয়নি। মজুরদের জন্য ৩৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দের দাবি জানাচ্ছি।’



সাতদিনের সেরা