kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৩ আষাঢ় ১৪২৮। ১৭ জুন ২০২১। ৫ জিলকদ ১৪৪২

নাটকে অর্থসংকট, কর্মী বেরোলেন রিকশা নিয়ে

নিয়ামুল কবীর সজল, ময়মনসিংহ   

১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নাটকে অর্থসংকট, কর্মী বেরোলেন রিকশা নিয়ে

আবুল মনসুর (৩৭)। নাট্যকর্মী হিসেবে ময়মনসিংহ নগরীর সাংস্কৃতিক অঙ্গনসহ বিভিন্ন মহলে তিনি সুপরিচিতি। দীর্ঘ সময় ধরে অভিনেতা ও নাট্যসংগঠক হিসেবে কাজ করে আসছেন। এবারও তিনি উদ্যোগ নিয়েছিলেন ‘হিটলার ইন বাংকার’ নামের নাটক মঞ্চস্থ করার। কিন্তু কাঙ্ক্ষিতজনদের কাছে সহযোগিতা না পেয়ে অভিমানে সম্প্রতি তিনি অটোরিকশা চালানো শুরু করেছেন। প্রতিদিন তিনি সন্ধ্যার পর রিকশা নিয়ে বের হন, যা আয় হয় তা সঞ্চয় করেন। ৬০ হাজার টাকা সঞ্চয় হলেই তিনি অবশ্য এ পেশা ছেড়ে দেবেন। গত ৩ এপ্রিল রিকশা চালানো শুরুর পর এ পর্যন্ত তাঁর আয় প্রায় চার হাজার টাকা।

অবশ্য বিষয়টি নাট্যকর্মী আবুল মনসুরের পরিবারের লোকজন জানেন না। জানেন না তাঁর ঘনিষ্ঠজনরাও। সন্ধ্যার পর মুখে মাস্ক দিয়ে ও মাথায় টুপি দিয়ে রিকশা চালানোর জন্য তাঁকে সহজে চিনতে পারারও কথা নয়।

আবুল মনসুর নাট্যসংগঠন অনসাম্বল থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি। পড়াশোনা এমবিএ। বাসা নগরীর সানকীপাড়া এলাকায়। সচ্ছল, সুখী পরিবারের সদস্য আবুল মনসুর নাটকপাগল হিসেবেই নগরীতে পরিচিত। এ ছাড়া বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক আন্দোলনেও তিনি পরিচিত মুখ। তাঁর সংগঠনের নাটক বিভিন্ন মহলে সমাদৃত।

আবুল মনসুর জানালেন, এ মাসেরই দ্বিতীয় সপ্তাহে ‘হিটলার ইন বাংকার’ নামে তিনি একটি নাটক মঞ্চস্থ করতে চেয়েছিলেন। এ জন্য সব কিছু মিলিয়ে তাঁর প্রয়োজন ছিল এক লাখ ৬০ হাজার টাকার। এখন পর্যন্ত ৬০ হাজার টাকা খরচ হয়ে গেছে। কিন্তু বাকি টাকা তিনি জোগাড় করতে পারেননি। পরিচিত অনেকের কাছেই সহযোগিতা চেয়েছেন। কেউ কেউ সহযোগিতা করেছেন। তবে সেটি খুব বেশি পরিমাণে নয়। অবশেষে তিনি টাকা জোগাড়ে রিকশা চালানোর সিদ্ধান্ত নেন। সন্ধ্যার পর এখন তাঁর তেমন কাজ থাকে না। কাজেই তিনি ওই সময়টাই বেছে নিয়েছেন। রাত ১০টা-১১টা পর্যন্ত তিনি রিকশা চালান।

গত ৩ এপ্রিল থেকে রিকশা চালানো শুরু করেছেন আবুল মনসুর। অটোরিকশাটি ব্রিজ এলাকার একজন মালিকের। তিনি প্রতিদিন ২০০ টাকা জমা দেন। বাকি যে টাকা আয় হয় তা সঞ্চয় করেন। এ পর্যন্ত তাঁর আয় হয়েছে চার হাজার টাকার মতো। এর মাঝে তিন হাজার ২০০ টাকা খরচ করে নাটকের একটি পোশাক বানিয়ে ফেলেছেন। তাঁর লক্ষ্য সামনের দিনগুলোতে ৬০ হাজার টাকা আয় করা।

পরিচিত লোকজন দেখেছেন কি না, দেখে থাকলে কী বলেছেন—এ প্রশ্নে আবুল মনসুর বলেন, খুব বেশি লোকজন জানেন না। পরিবারের লোকজনও জানেন না। তবে পরিচিত যাঁরা রিকশায় উঠেছেন তাঁরা বিষয়টি জানার পর তাঁকে সাধুবাদ জানিয়েছেন। পরিচিতজনদের অনেকেই তাঁকে ভাড়া বেশি দিয়েছেন।

আবুল মনসুর আরো বলেন, জিদ ও অভিমান থেকে তিনি রিকশা চালানো শুরু করেছেন। তিনি নাটকটি মঞ্চায়নে সফল হতে চান।



সাতদিনের সেরা