kalerkantho

শুক্রবার। ৩১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ মে ২০২১। ০২ শাওয়াল ১৪৪২

‘বিদেশে যেতে দুদকের নিষেধাজ্ঞা অবৈধ’

হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে চায় দুদক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



দেশের কোনো নাগরিকের বিদেশে যেতে দুদকের নিষেধাজ্ঞা অবৈধ বলে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার অনুমতি চেয়ে (লিভ টু আপিল) আবেদন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই আবেদন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। আবেদনে হাইকোর্টের রায়ের ওপর স্থগিতাদেশ চাওয়া হয়েছে।

হাইকোর্ট গত ১৬ মার্চ নরসিংদীর আতাউর রহমান ওরফে সুইডেন আতাউর রহমানের বিদেশে যাওয়ার ওপর দুদকের নিষেধাজ্ঞা অবৈধ বলে রায় দেন। তবে ১২ পৃষ্ঠার পূর্ণাঙ্গ রায় গত ৪ এপ্রিল প্রকাশিত হয়। ব্যবসায়ী আতাউর রহমান ওরফে সুইডেন আতাউর রহমানের বিদেশে যাওয়ার ওপর দুদকের দেওয়া নিষেধাজ্ঞা চ্যালেঞ্জ করে দাখিল করা রিট মামলায় এই রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ে বলা হয়, কমিশন কর্তৃক আবেদনকারীর বিরুদ্ধে দেশত্যাগে গৃহীত ব্যবস্থা আইনসংগত কর্তৃত্ব ব্যতিরেকে করা হয়েছে এবং এর কোনো আইনগত কার্যকারিতা নেই।

হাইকোর্টের রায়ে বলা হয়েছে, ‘আমাদের বলতে দ্বিধা নেই যে নাগরিকের চলাফেরার সাংবিধানিক অধিকার কোনো ব্যক্তি বা কর্তৃপক্ষের খেয়ালখুশি অনুযায়ী নিয়ন্ত্রণ বা বারিত করা অসাংবিধানিক।’ রায়ে আরো বলা হয়, ‘অনির্দিষ্ট সময়ের জন্য কারো ওপর এ ধরনের বিধি-নিষেধ আরোপ সংবিধান ও মানবতাবিরোধী পদক্ষেপ। সুনির্দিষ্ট আইন বা বিধির অনুপস্থিতিতে কোনো তদন্ত সংস্থার দাপ্তরিক আদেশ দিয়ে এ ধরনের পদক্ষেপ বা কার্যধারা গ্রহণ সংবিধান পরিপন্থী। তাই এর সময়সীমা নির্দিষ্ট করাও ন্যায়সংগত হবে।’

রায়ে জনগণের স্বাধীন চলাফেরার অধিকারসংবলিত সংবিধানের ৩৬ নম্বর অনুচ্ছেদ উল্লেখ করে বলা হয়, ‘বিধান অনুসারে কোনো নাগরিকের চলাফেরার স্বাধীনতাকে নিয়ন্ত্রণ বা বারিত করতে হলে তা হতে হবে প্রথমত জনস্বার্থে এবং দ্বিতীয়ত সুনির্দিষ্ট আইনের দ্বারা। কোনো ব্যক্তির চলাফেরা নিয়ন্ত্রণ বা বারিত করতে হলে উপরোক্ত দুটি শর্তই পূরণ অপরিহার্য; দুই শর্তের একটি পূরণ হলে অপরটি না হলে, তা আইনসংগত হবে না।’

জানা যায়, দুদক ২০২০ সালের ২৪ আগস্ট আতাউর রহমানের সম্পদের তথ্য চেয়ে নোটিশ দেয়। এই নোটিশের পর ২২ অক্টোবর তিনি তাঁর সম্পদের তথ্য দুদকে দাখিল করেন। দুদক সম্পদের তথ্য পেয়ে অনুসন্ধানে নামে। এই অনুসন্ধানকালে গত বছরের ২০ ডিসেম্বর আতাউর রহমানের বিদেশে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে পুলিশের বিশেষ শাখায় (এসবি) চিঠি দেয় দুদক। এ অবস্থায় এই চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে রিট আবেদন করেন আতাউর রহমান।

রায়ে আরো বলা হয়, ‘অনুসন্ধান বা তদন্ত পর্যায়ে সন্দেহভাজন বা অভিযুক্ত অনেকে বিভিন্ন অজুহাতে দেশ ত্যাগ করছে এবং পরে তাদের আর আইন-আদালতের সম্মুখীন করা সম্ভব হচ্ছে না।’



সাতদিনের সেরা