kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮। ১৮ মে ২০২১। ৫ শাওয়াল ১৪৪

বজ্রপাত ঝড় শিলাবৃষ্টি

হালুয়াঘাটে কৃষক নিহত রংপুরে ব্যাপক ক্ষতি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৯ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে বজগ্ন মেঘনা নদীতে ঝড়ের কবলে পড়ে একটি পণ্যবাহী ট্রলার ডুবে গেছে। রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নের ওপর দিয়ে ঘণ্টাব্যাপী শিলাবৃষ্টিসহ কালবৈশাখী বয়ে গেছে। এতে পাঁচ শতাধিক বসতঘরের টিনের চালা ফুটো হওয়াসহ বোরো ও ভুট্টাক্ষেতের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার এসব ঘটনা ঘটে।

হালুয়াঘাটে নিহত নুর ইসলাম (৫০) পৌর শহরের আকনপাড়া গ্রামের মৃত হাজারী শেখের ছেলে। স্থানীয় কাউন্সিলর ফারুক মল্লিক জানান, সকাল সাড়ে ৮টার দিকে নুর ইসলাম তাঁর ঘরের বারান্দায় বসে ছিলেন। এ সময় হঠাৎ বৃষ্টি শুরু হলে বজ পাত ঘটে।

চট্টগ্রামের ফিশারিঘাট থেকে হাতিয়া যাওয়ার পথে ভোর ৫টার দিকে ঝড়ে আল্লাহর দান-১ নামের পণ্যবোঝাই ট্রলারটি ডুবে যায়। তবে এতে কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। ট্রলার মালিক মোহাম্মদ হেলাল উদ্দিন বলেন, ট্রলারে হাতিয়ার ওছখালী বাজারের ব্যবসায়ীদের মুদি মাল, সিমেন্ট, রড ও টিন ছিল। বঙ্গোপসাগরের চট্টগ্রাম সীমানা থেকে হাতিয়া সীমানায় প্রবেশের কিছুুক্ষণ পর হঠাৎ ঝড়ের কবলে পড়ে এবং ইঞ্জিনে ত্রুটি দেখা দিলে ট্রলারটি ডুবে যায়। ট্রলারে কোটি টাকার পণ্য ছিল।

হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বলেন, ট্রলারডুবির পর সারেংসহ আটজন লাইফ জ্যাকেট পরে সাগরে ভাসতে থাকেন। পরে সাগরে থাকা অন্য জেলেরা তাঁদের উদ্ধার করেন। তবে ট্রলারটি উদ্ধার করা যায়নি। এটিতে হাতিয়ার ব্যবসায়ীদের মুদি মালামাল ছিল বলে জেনেছেন।

রংপুরে ক্ষতিগ্রস্তরা জানান, বুধবার রাত ১২টার দিকে দুর্গাপুর, লতিবপুর, পায়রাবন্দ, ভাংনী, বালারহাট, মির্জাপুর, ইমাদপুর, চেংমারী, ময়েনপুর, খোড়াগাছ ও রানীপুর ইউনিয়নের ওপর দিয়ে শিলাবৃষ্টিসহ কালবৈশাখী বয়ে যায়। উপজেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মোশফিকুর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে চারটি ইউনিয়নে শিলাবৃষ্টিতে ক্ষয়ক্ষতির খবর পেয়েছি। তথ্য সংগ্রহ চলছে। সব ইউনিয়নের ক্ষয়ক্ষতির তথ্য হাতে আসার পর মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন পাঠানো হবে।’

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আনোয়ার হোসেন জানান, উপজেলায় বোরো চাষ হয়েছে ৩৩ হাজার ৩৬০ হেক্টর জমিতে। শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হয়েছে ৩০ হেক্টর। আর তিন হাজার ভুট্টাক্ষেতের মধ্যে ক্ষতি হয়েছে দুই হেক্টরে।

[প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র রংপুর অফিস এবং নোয়াখালী ও হালুয়াঘাট প্রতিনিধি]