kalerkantho

বুধবার । ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮। ২৮ জুলাই ২০২১। ১৭ জিলহজ ১৪৪২

যৌন নির্যাতনের অভিযোগে তিন মামলা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যশোরের কেশবপুরে শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মসজিদের এক ইমামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে পাবনার চাটমোহরে। কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এক শিক্ষককে।

কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি জানান, গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তির নাম ইমরান হোসেন। তিনি মধ্যকুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সংলগ্ন মসজিদের ইমাম। তাঁর বাড়ি ভবানীপুর এলাকায়। প্রতিদিন বিকেলে মসজিদের বারান্দায় শিশুদের আরবি পড়ান তিনি। মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, সোমবার সন্ধ্যায় অন্যদের ছুটি দিলেও এক শিশুকে (৬) থাকতে বলেন ইমরান হোসেন। এরপর সবাই চলে গেলে তিনি শিশুটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। শিশুটি বাড়িতে গিয়ে ঘটনা জানালে এলাকাবাসী তাঁকে ধরে পুলিশে দেয়।

চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি জানান, বড় দুবলাপাড়া এলাকায় এক কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুজনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাঁরা হলেন ফৈলজানা ইউনিয়নের বড় দুবলাপাড়া গ্রামের আলাউদ্দিন (৩০) ও মাজিদ (৪০)। ভুক্তভোগী কিশোরী তাঁদের আত্মীয়।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, এই দুই ব্যক্তি ভুক্তভোগী কিশোরীকে ঢাকায় বড় বোনের বাসায় নিয়ে যাওয়ার কথা বলে ভবানীপুর গ্রামের একটি বাড়িতে আটকে রেখে ধর্ষণ করেন।

নাঙ্গলকোট (কুমিল্লা) প্রতিনিধি জানান, শিশু ধর্ষণের অভিযোগে বক্সগঞ্জ ইউনিয়নের শুভপুর ওয়াছাকিয়া কুরআনিয়া মাদরাসার শিক্ষক বিল্লাল হোসেনকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। তিনি খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলার চেংগুছড়া গ্রামের বাসিন্দা।

ভুক্তভোগী শিশুকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মামলার এজাহার অনুযায়ী, সোমবার বিকেলে বিল্লাল হোসেন ওই শিশুটিকে ধর্ষণ করেন।