kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

কিশোরগঞ্জ ও নওগাঁয় বিএনপি পুলিশ সংঘর্ষ

চট্টগ্রামে ডা. শাহাদাতের বিরুদ্ধে তিন মামলা

কিশোরগঞ্জ ও নওগাঁ প্রতিনিধি   

৩১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নওগাঁ ও কিশোরগঞ্জে গতকাল বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ৮০ জন আহত হয়েছে। উভয় স্থানে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে।

সম্প্রতি পুলিশের গুলিতে হেফাজতে ইসলামের কয়েকজন কর্মী নিহতের ঘটনার প্রতিবাদে পূর্বঘোষিত বিক্ষোভ কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

নওগাঁ জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট রফিকুল আলমসহ কয়েকজন নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, দুপুর ১২টার দিকে শহরের কেডির মোড় এলাকায় বিএনপি দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিল বের করলে পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে সংঘর্ষ বাধে। প্রায় ২০ মিনিট ধরে সংঘর্ষ চলে। পরে সদর থানা ও পুলিশ লাইন থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়।

কিশোরগঞ্জ শহরের পুরান থানা ও একরামপুর এলাকায় দুপুর ১২টা থেকে শুরু হয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা সংঘর্ষ চলে। এতে তিন পুলিশ সদস্যসহ ৩০ জন আহত হয়। সংঘর্ষের ঘটনায় শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, শহরের একরামপুর ও শোলাকিয়া থেকে বিএনপির দুটি মিছিল পুরান থানা এলাকায় পৌঁছার আগমুহূর্তে পুলিশ ধাওয়া দেয়। এরপর নেতাকর্মীরা পুলিশের দিকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করতে থাকেন। তখন পুলিশ ফাঁকা গুলি ও টিয়ার শেল ছোড়ে। 

কিশোরগঞ্জ মডেল থানার ওসি আবুবকর সিদ্দিক জানান, মডেল থানার ওসি (ইন্সপেক্টর) জয়নাল আবেদীনসহ তিন পুলিশ সদস্য বিএনপিকর্মীদের নিক্ষিপ্ত পাথরের আঘাতে আহত হন। পুলিশ দুজনকে আটক করেছে। এ ব্যাপারে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম জানান, চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির দলীয় কার্যালয় নাসিমন ভবনের সামনে গত সোমবার সন্ধ্যায় পুলিশের সঙ্গে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে দুটি মামলা করা হয়েছে। এদিকে ডা. শাহাদাতের বিরুদ্ধে বিএনপি নেত্রী লুসি খান চকবাজার থানায় একটি মামলা করেছেন। লুসির অভিযোগ, তাঁর পরিচালিত একটি এনজিওর কাছে এক কোটি টাকা চাঁদা চেয়েছেন ডা. শাহাদাত। লুসি গত চসিক নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন। এ মামলা দায়েরের পরপরই পুলিশ ডা. শাহাদাতকে তাঁর ব্যক্তিগত চেম্বার থেকে গ্রেপ্তার করে। পরে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় দায়ের করা দুই মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

গতকাল বিকেলে ডা. শাহাদাতসহ গ্রেপ্তার ১৬ নেতাকর্মীকে মহানগর হাকিম সারোয়ার জাহানের আদালতে সোপর্দ করে রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। আদালত বুধবার (আজ) রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।



সাতদিনের সেরা