kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ শ্রাবণ ১৪২৮। ৫ আগস্ট ২০২১। ২৫ জিলহজ ১৪৪২

ঢাকা আজ থেকে কঠোর নিরাপত্তাবলয়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠান ঘিরে আজ বুধবার থেকে টানা ১০ দিনের জন্য কঠোর নিরাপত্তাবলয়ে ঢুকে যাচ্ছে রাজধানী ঢাকা। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিসহ কয়েকটি দেশের রাষ্ট্র-সরকারপ্রধানদের সফর উপলক্ষে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ব্যাপক তৎপর গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরাও।

আগামী ২৬ মার্চ পর্যন্ত টানা ১০ দিন ঢাকাকে একপ্রকার নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে রাখবেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কয়েক হাজার সদস্য। ভিভিআইপিদের আসা-যাওয়া, থাকার স্থানসহ অনুষ্ঠান ও গুরুত্বপূর্ণ স্থানগুলোতে সর্বোচ্চ নিরাপত্তাব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এ জন্য পুলিশ সদর থেকে সংশ্লিষ্ট বিভাগে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ। আগামী ১০ দিন ঢাকায় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া চলাচল সীমিত রাখারও আহ্বান জানিয়েছেন দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তারা। নরোন্দ্র মোদির সফর কর্মসূচি থাকায় ঢাকার বাইরে গোপালগঞ্জ ও সাতক্ষীরায়ও কঠোর নিরাপত্তার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা জানান, নির্দেশনা অনুযায়ী আজ থেকে ব্যাপক নিরাপত্তা কার্যক্রম শুরু করছে ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) ও র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। বিভিন্ন স্তরে ভিভিআইপি নিরাপত্তা প্রস্তুতির পাশাপাশি চেকপোস্ট, যানবাহন এবং সন্দেহজনক বাড়ি ও হোটেলে তল্লাশি অভিযান শুরু হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনুষ্ঠান সম্পর্কে কেউ উসকানিমূলক পোস্ট, ছবি, বিরূপ মন্তব্য ও গুজব ছড়ালে দ্রুত তাকে গ্রেপ্তার করা হবে। আগামী ১০ দিন কোনো রাজনৈতিক গণজমায়েত বা কর্মসূচিও পালন করতে দেওয়া হবে না।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান সাংবাদিকদের বলেন, ‘১৭ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ঢাকার বিভিন্ন স্থানে কঠোর নিরাপত্তা থাকবে। এ সময়ে কেউ কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলার চেষ্টা করলে কঠোরভাবে মোকাবেলা করা হবে।’

গতকাল মঙ্গলবার রাজারবাগে এক অনুষ্ঠানে আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ বলেন, অতিথিদের নিরাপত্তায় প্রতিটি ভেন্যু নিরাপত্তা চাদরে ঢেকে দেওয়া হবে। ১০ দিন জরুরি প্রয়োজন ছাড়া জনগণের চলাচল সীমিত রাখার জন্য তিনি নগরবাসীর প্রতি অনুরোধ জানান।

গতকাল র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, ‘আগামীকাল (আজ) থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত আয়োজিত সব অনুষ্ঠান যাতে নিরাপদে ও নির্বিঘ্নে অনুষ্ঠিত হয়, সে জন্য রাজধানীজুড়ে সড়ক, আকাশ ও নৌপথে থাকছে র‌্যাবের নিরাপত্তাব্যবস্থা। চেকপোস্টগুলোতে থাকবে অন-সাইট আইডেন্টিফিকেশন অ্যান্ড ভেরিফিকেশন সিস্টেম।’

সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল মফিদুর রহমান জানান, বিদেশি অতিথিদের নিয়ে আসা বিমান বাংলাদেশের আকাশসীমায় পৌঁছামাত্র হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আধাঘণ্টা সব ধরনের বিমান ওঠানামা বন্ধ থাকবে। তাঁদের আসা-যাওয়ার সময় বিশেষ নজরদারি ও নিরাপত্তা থাকবে।



সাতদিনের সেরা