kalerkantho

শুক্রবার । ৯ আশ্বিন ১৪২৮। ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৬ সফর ১৪৪৩

ঘুমন্ত তিন ভাই-বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু

চকরিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি   

১৭ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ঘুমন্ত তিন ভাই-বোনের মর্মান্তিক মৃত্যু

তিনটি ছবি। একটিতে তিন শিশু সমুদ্রসৈকতে মা-বাবা-দাদির সঙ্গে। একটিতে গৃহশিক্ষকের সঙ্গে পড়ার টেবিলে। চোখ জুড়িয়ে যাওয়ার মতো ছবি। আর তৃতীয় ছবিটি দেখলেই চোখ জলে ভিজে যায়। শিশু তিনটি আর সৈকতে যাবে না, বসবে না পড়ার টেবিলে। এক ঘরে ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে দগ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে এই তিন ভাই-বোনের।

হৃদয়বিদারক ঘটনাটি ঘটেছে কক্সবাজারের চকরিয়া উপজেলার হারবাং ইউনিয়নের উত্তর হারবাংয়ের সাবানঘাটা গ্রামের জাকের হোসেন মেস্ত্রীর বাড়িতে গত সোমবার রাতে। এ সময় বাড়িটিও পুড়ে কয়েক লাখ টাকার সম্পদের ক্ষয়ক্ষতি হয়।

মৃতরা হলো ষষ্ঠ শ্রেণির স্কুলছাত্র জিহাদুল ইসলাম (১২), তৃতীয় শ্রেণির স্কুলছাত্রী ফৌজিয়া জান্নাত মীম (১০) ও সাত বছরের আফিয়া জান্নাত মিতু। তারা জাকের হোসেন মেস্ত্রী ও জেসমিন আক্তার কাজলের ছেলে-মেয়ে।

গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন কাজল। তিন সন্তানকে হারিয়ে বারবার মূর্ছা যাচ্ছিলেন তিনি। কাজল জানান, তাঁর স্বামী সোমবার দুপুরে চলে যান চট্টগ্রামের পদুয়ার একটি মাজারে ওরস মাহফিলে। বাড়িতে রাতের খাবার খেয়ে ৯টার দিকে পরিবারের অন্য সবাই ঘুমিয়ে পড়ে। তিন শিশুসন্তান একটি কক্ষে এবং কাজল ১৫ মাসের কোলের শিশুপুত্র আবদুল্লাহ আল মাহীরকে নিয়ে অন্য একটি কক্ষে ঘুমান। রাত সাড়ে ১১টার দিকে হঠাৎ আগুনের তাপে জেগে ওঠেন কাজল এবং কোলের শিশুকে নিয়ে দ্রুত ঘর থেকে বেরিয়ে পড়েন। কিন্তু ততক্ষণে অন্য কক্ষে ঘুমন্ত তিন সন্তান আগুনে অঙ্গার হয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী গ্রামবাসী জানায়, তারা খবর পেয়ে গিয়ে দেখতে পায়, দাউদাউ করে টিনের চালার মাটির ঘরটি জ্বলছে। পাশের পুকুর ও টিউবওয়েলের পানি নিয়ে প্রায় আধাঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে তারা। এরপর ঘর থেকে একে একে বের করে আনা হয় তিন ভাই-বোনের পোড়া মরদেহ। এ ঘটনায় গ্রামে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।



সাতদিনের সেরা