kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ কার্তিক ১৪২৮। ২৬ অক্টোবর ২০২১। ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

আখতার হামিদের মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিলের পথে

মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি   

১১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



জাতীয় সংসদের সাবেক ডেপুটি স্পিকার প্রয়াত আখতার হামিদ সিদ্দিকীর মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাইয়ের আবেদন নামঞ্জুর হয়েছে। ফলে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে তাঁর সনদ বাতিল হওয়ার পথে। আখতার হামিদের পক্ষে তাঁর বড় ছেলে পারভেজ আরেফিন সিদ্দিকী জনি মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে আবেদনটি করেছিলেন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি যাচাই-বাছাইয়ের এই প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়।

আখতার হামিদ সিদ্দিকী মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ছিলেন। ১৯৯১ সাল থেকে তিনি চারবার এমপি নির্বাচিত হন। তাঁকে ২০০১ সালে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মনোনীত করা হয়। তাঁর মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিলের বিষয় এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে নানা গুঞ্জন শুরু হয়।

 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, গত ৬ ফেব্রুয়ারি মহাদেবপুরে বেসামরিক গেজেটভুক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই অনুষ্ঠিত হয়। এতে ৮৩টি আবেদন জমা পড়ে। যাচাই-বাছাই শেষে ৭৫ জনের আবেদন সঠিক পাওয়া যায়। তিনজনের নাম লাল মুক্তিবার্তায় থাকায় যাচাইয়ের প্রয়োজন হয়নি। একজন যাচাইয়ে উপস্থিত হননি। অন্যজনের ব্যাপারে কমিটির সদস্যরা দ্বিধাবিভক্ত সিদ্ধান্ত দিয়েছেন। বাকি দুজনের নামে অভিযোগ থাকায় আবেদন নামঞ্জুর করা হয়। এদের মধ্যে একজন লক্ষ্মণপুর গ্রামের আলতাফ হোসেন ফারুক ও অপরজন উত্তরগ্রামের আখতার হামিদ সিদ্দিকী।

যাচাই-বাছাই কমিটির সভাপতি জানান, মুক্তিযুদ্ধের সময় আখতার হামিদ সিদ্দিকী মুক্তিযোদ্ধা নন বলে ছয়জন মুক্তিযোদ্ধা অভিযোগ উত্থাপন করেন।

মহাদেবপুর ইউএনও মিজানুর রহমান মিলন বলেন, বিধি অনুযায়ী যাচাই-বাছাইয়ের প্রতিবেদন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবর পাঠানো হয়েছে। তাঁরাই পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন।



সাতদিনের সেরা