kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

জামিন জালিয়াতি

বগুড়ায় ৩০ আসামিই কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া   

৫ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উচ্চ আদালতের নামে জামিন জালিয়াতির ঘটনায় বগুড়া মোটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক ও নবনির্বাচিত পৌর কাউন্সিলর আমিনুল ইসলামসহ ৩০ জনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম আসমা মাহমুদের আদালতে ১৬ জন অভিযুক্ত আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিচারক তা নামঞ্জুর করে তাঁদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। আগের দিন বুধবার বিকেলে একই আদালত ১৪ অভিযুক্তকে জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠান।

বগুড়ার কোর্ট পরিদর্শক সুব্রত ব্যানার্জী ও আসামিপক্ষের আইনজীবী আব্দুল মান্নাফ এই তথ্য নিশ্চিত করেন। মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন বিদ্যুৎ কুমার কর।

মামলা ও আদালত সূত্রে জানা যায়, গত ৯ ফেব্রুয়ারি বগুড়া জেলা মোটর মালিক গ্রুপের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মঞ্জুরুল আলম মোহনের ভাই মশিউল আলম বাদী হয়ে ১০ ফেব্রুয়ারি একটি মামলা করেন। এ ছাড়া পুলিশ বাদী হয়ে একটি এবং মোটর মালিক গ্রুপের কার্যালয়ে হামলার ঘটনায় আমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে একটি মামলা করেন। তিন মামলায় নাম উল্লেখ করা আসামির সংখ্যা ৩৩। ১৪ ফেব্রুয়ারি উচ্চ আদালতের দুজন বিচারকের নাম ব্যবহার করে ভুয়া জামিননামায় ৩০ আসামির জামিন হয়েছে বলে কাগজপত্র বগুড়া সদর থানায় জমা দেন আমিনুল। তবে ২৪ ফেব্রুয়ারি ভুয়া জামিন নেওয়ার ঘটনাটি ফাঁস হয়ে যায়। পরে উচ্চ আদালতের (হাইকোর্ট) একটি বেঞ্চ ভুয়া জামিননামায় অভিযুক্ত ৩০ আসামিকে সাত কার্যদিবসের মধ্যে গ্রেপ্তার করতে বগুড়া সদর থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

গতকাল কারাগারে পাঠানো আসামিরা হলেন বগুড়া পৌরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমিনুল ইসলাম, মোহাম্মদ বাদল, সেলিম, কিবরিয়া, আবদুল আলিম, সাদ্দাম, মাহমুদ, রতন, সেলিম রেজা, রুহুল আমিন, আনোয়ার মণ্ডল, রাশেদুল, জাহিদুর রহমান, নুর আলম মণ্ডল, বিপুল ও সুমন প্রামাণিক।

মন্তব্য