kalerkantho

সোমবার । ৬ বৈশাখ ১৪২৮। ১৯ এপ্রিল ২০২১। ৬ রমজান ১৪৪২

সড়ক দুর্ঘটনায় ছয় জেলায় নিহত ৬

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ, নওগাঁর রাণীনগর, গাজীপুরের কালীগঞ্জ, পঞ্চগড়ের ধাক্কামারা, ময়মনসিংহের ভালুকা ও শেরপুরের শ্রীবরদীতে সড়ক দুর্ঘটনায় ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। নিহতদের মধ্যে শিশু ও প্রতিবন্ধী নারীও রয়েছেন।

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি জানান, নরেন্দ্রপুর গ্রামে কালীগঞ্জ-মল্লিকপুর সড়কে নসিমন উল্টে মিনহাজ উদ্দীন (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রের মৃত্যু হয়। সে নরেন্দ্রপুর গ্রামের হারেজ মল্লিকের ছেলে এবং ঘোষনগর সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণিতে পড়ত।

পঞ্চগড় প্রতিনিধি জানান, গতকাল সকালে ধাক্কামারা ইউনিয়নের যতনপুকুরী এলাকায় ট্রাক্টর চাপায় তানভীর হাসান (৩) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়। সে ওই এলাকার তাহেরুল ইসলামের ছেলে। স্থানীয় লোকজন জানায়, শিশুটি ট্রাক্টরের পাশেই খেলছিল। ট্রাক্টর চালু করে চালক এগোতে গেলে তানভীর চাকার নিচে পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

ভালুকা (ময়মনসিংহ) প্রতিনিধি জানান, কাঁঠালী এলাকায় সৌদি বাংলা ফিস ফিড কারখানার সামনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে গাড়িচাপায় এক প্রতিবন্ধী নারীর মৃত্যু হয়। ঘটনাটি ঘটে রাত সাড়ে ১০টার দিকে। নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

শ্রীবরদী (শেরপুর) প্রতিনিধি জানান, কুড়িকাহনীয়া গ্রামের বাজারের পাশে একটি ট্রলি উল্টে যায়। এ সময় ট্রলির নিচে চাপা পড়ে মৃত্যু হয় চালক ফকির আলীর (৪০)। তিনি সদর উপজেলার পাকুরিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

রাণীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি জানান, উপজেলার একডালা ইউনিয়নের বিশঘড়িয়া গ্রামে গতকাল দুপুরে ভটভটি চাপায় ময়নুল হক (৩৮) নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। তিনি ওই গ্রামের মানিক আলীর ছেলে।

নিজস্ব প্রতিবেদক (গাজীপুর) জানান, কালীগঞ্জের নলছাটা এলাকায় ট্রাকের সঙ্গে সিএনজি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে ফিরোজ মিয়া (৫৫) নামে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়। তিনি তুমুলিয়া ইউনিয়নের বর্তুল গ্রামের বাসিন্দা।

ট্রাক কেড়ে নিল নানি-নাতনিকে

এদিকে নিজস্ব প্রতিবেদক (ঢাকা) জানান, সিএনজিচালক ছেলের সিএনজিতে করে মেয়ের বাসায় যাওয়ার সময় পথে লাশ হতে হলো মা ও নাতনিকে। গতকাল সোমবার ভোর ৬টার দিকে রূপনগর বেড়িবাঁধ পাম্প হাউসসংলগ্ন রাস্তায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

মা সালমা বেগম, দুই ভাগ্নি রিনিতা মণি ও রিয়াকে নিয়ে একই সিএনজিতে করে আশুলিয়ায় যাচ্ছিলেন সালেক। রাজধানীর রূপনগর বেড়িবাঁধ এলাকায় পৌঁছলে একটি ট্রাক সিএনজিকে ধাক্কা দিলে নিহত হন ভাগ্নি রিনিতা (১১) ও মা সালমা (৫৫)।

রূপনগর থানার এসআই মো. লোকমান হোসেন বলেন, ভোরে একটি সিএনজি করে আশুলিয়ায় বেড়াতে যাচ্ছিল চারজন। এ সময় বেড়িবাঁধ এলাকায় ট্রাকটি সিএনজিকে ধাক্কা দেয়। এতে রিনিতা ঘটনাস্থলেই মারা যায়। আর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) দুপুর ১২টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান সালমা। ঘটনায় আহত হয় রিয়া ও সালেক। তিনি আরো জানান, রিনিতার মরদেহ উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে এবং সালমার মৃতদেহ ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে।

রিনিতার খালা শিউলি আক্তার জানান, রিনিতাদের বাড়ি রংপুর জেলার কালীগঞ্জ উপজেলার কাকিনা গ্রামে। শিউলি থাকেন আশুলিয়ায়। তাঁর মা সালমা ও বোনের দুই মেয়ে রিনিতা ও রিয়া গ্রামে থাকে। সপ্তাহখানেক আগে নানির সঙ্গে দুই বোন আদাবর এলাকায় নানা আবুল হোসেনের কাছে বেড়াতে আসে। সেখান থেকে ভোরে সালেকের সিএনজিতে করে আশুলিয়ায় তাঁর (শিউলি) বাসায় যাচ্ছিল। পথে রূপনগর বেড়িবাঁধে দুর্ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা