kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

‘কথা বলার অধিকার চাই’

নারায়ণগঞ্জ, শাবিপ্রবি ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি    

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাবন্দি অবস্থায় লেখক মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার রাজশাহী ও সিলেটের শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেছেন। এই মৃত্যুর ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করে নারায়ণগঞ্জে মিছিল সমাবেশ করেছে গণসংহতি আন্দোলন।

সকাল ১১টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলকের সামনে মুখে কালো কাপড় বেঁধে প্রতিবাদ জানান শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এ সময় তাঁদের হাতে ‘লেখক মুশতাকের হত্যাকারী রাষ্ট্র’, ‘লেখক মুশতাক হত্যাকাণ্ডের বিচার চাই’, ‘কথা বলার অধিকার চাই’, ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মানি না’ ইত্যাদি লেখা প্ল্যাকার্ড ছিল। তাঁরা ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করেন।

বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সৌভিক রেজা বলেন, ‘আমরা এই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন মানছি না। লেখক মুশতাকের এই মৃত্যুর পুরো দায়ভার রাষ্ট্রের। আমাদের প্রতিটা লাশের হিসাবের জন্য সোচ্চার হতে হবে। জবাবদিহির বাইরে যেন কোনো লাশ না থাকে।’

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীরা  ‘মুশতাক আহমেদ মরল কেন সরকার জবাব দাও’, ‘আমাকে গ্রেপ্তার করো, বিনা জামিনে বিনা বিচারে হত্যা করো!’, ‘রাষ্ট্রীয় হত্যাযোগ্য নিপীড়ন রুখে দাঁড়াও জনগণ’, ‘মানবতাবিরোধী ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন বাতিল করো’, ‘ডিজিটাল আইনে বন্দিদের অবিলম্বে মুক্তি দাও’ ইত্যাদি লেখাসংবলিত প্ল্যাকার্ড ও ফেস্টুন বহন করেন।

গণসংহতি আন্দোলনের নেতাকর্মীরা গতকাল বিকেলে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশ করেন। এর আগে মিছিল করেন তাঁরা। সমাবেশে বক্তারা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের কঠোর সমালোচনা করেন।

লেখক মুশতাক আহমেদ (৫৩) গত বৃহস্পতিবার রাতে মারা যান।

মন্তব্য