kalerkantho

শনিবার । ২৭ চৈত্র ১৪২৭। ১০ এপ্রিল ২০২১। ২৬ শাবান ১৪৪২

বাগেরহাটে ১৯টি হরিণের চামড়া উদ্ধার, আটক ২

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাগেরহাটের শরণখোলা থেকে ১৯টি হরিণের চামড়া উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় আটক করা হয়েছে সুন্দরবনের বন্য প্রাণী শিকার ও পাচারকারী সিন্ডিকেটের দুই সদস্যকে। বাগেরহাট গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ গতকাল শনিবার ভোরে শরণখোলা উপজেলা বাসস্ট্যান্ড এলাকা থেকে এসব হরিণের চামড়াসহ তাঁদের আটক করেছে।

জানা গেছে, উদ্ধারকৃত হরিণের ১৯টি চামড়ার মধ্যে ১১টি বড় এবং আটটি ছোট। এর মধ্যে কয়েকটি কাঁচা চামড়া রয়েছে। এর আগে গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শরণখোলা বাসস্ট্যান্ড থেকে একটি বাঘের চামড়াসহ শিকারিচক্রের এক সদস্যকে আটক করেন বন বিভাগ ও র‌্যাবের সদস্যরা। গতকাল আটককৃতরা হলেন শরণখোলা উপজেলার রাজৈর গ্রামের মতিন হাওলাদারের ছেলে ইলিয়াস হাওলাদার ও উপজেলার বাসস্ট্যান্ড-সংলগ্ন মোশারেফ শেখের ছেলে মনিরুল ইসলাম শেখ।

বাগেরহাট পুলিশ অফিসে গতকাল দুপুরে প্রেস ব্রিফিং করেন পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায়। তিনি জানান, সুন্দরবন থেকে কয়েকটি হরিণের চামড়া এনে বিক্রির জন্য শরণখোলা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রাখা হয়েছে গোপন সূত্রে এমন খবর পেয়ে ডিবি পুলিশ শুক্রবার গভীর রাতে সেখানে অভিযান চালায়। তারা মনিরুল ইসলামের বাড়ির কাছে পৌঁছলে সংশ্লিষ্টরা পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় ধাওয়া করে মনিরুল ও ইলিয়াসকে আটক করে ডিবি পুলিশ। পরে তাঁদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে মনিরুলের কাঠের দোতলা ঘর থেকে ১৯টি হরিণের চামড়া জব্দ করা হয়।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাফিন মাহমুদ জানান, আটক দুজন সুন্দরবনে হরিণ শিকার ও চামড়া পাচারকারী সিন্ডিকেটের সক্রিয় সদস্য। তাঁরা সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অবৈধভাবে সুন্দরবনে প্রবেশ করে বন্য প্রাণী শিকার করে চামড়া বিক্রি করে আসছেন। উদ্ধারকৃত হরিণের ১৯টি চামড়া বিক্রির জন্য চট্টগ্রামে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন আটক ওই দুজন। আটক ইলিয়াস হাওলাদারের বিরুদ্ধে এর আগেও হরিণ শিকারের মামলা হয়েছে।

মন্তব্য