kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল সাতজনের

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২১ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বিভিন্ন স্থানে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় এক শিশুসহ নিহত হয়েছে সাতজন। আহত হয়েছে ১৬ জন। গতকাল বুধবার পটুয়াখালী, ফরিদপুর ও পিরোজপুরে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। বিস্তারিত কালের কণ্ঠ’র প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদে।

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) প্রতিনিধি জানান, ছেলের সঙ্গে কুয়াকাটায় শিক্ষাসফরে এসে মো. বাবলু হোসেন নামের এক ব্যক্তি মারা গেছেন। তাঁর বাড়ি ঝিনাইদহের ধোপাঘাটা গোবিন্দপুর এলাকায়।

স্বজনদের সূত্রে জানা যায়, গতকাল সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছেলে মাহিনের সঙ্গে স্কুলের শিক্ষাসফরে কুয়াকাটায় যান বাবলু। সমুদ্রে গোসল করতে গিয়ে ছবি তোলার একপর্যায়ে তিনি মারা যান। কুয়াকাটা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। হৃদক্রিয়া বন্ধ হয়ে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এদিকে গতকাল মহিপুর থানার মোয়াজ্জেমপুরে গাছবোঝাই টমটম উল্টে ওই গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে বাবুল হাওলাদার (১১) নিহত হয়েছে। আহত হয়েছেন বাবা রুহুল আমিন।

নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর জানান, ফরিদপুরের ভাঙ্গা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়ের বগাইল টোলপ্লাজা এলাকায় গতকাল দুপুরে দুরন্ত পরিবহন নামের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের ওপরেই উল্টে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত ও ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরো একজন মারা যান। আহত হয় বাসের আরো ১৫ যাত্রী।

নিহতদের মধ্যে অজ্ঞাতপরিচয় দুই নারী (৩০) রয়েছেন। নিহত অন্য নারী হলেন জেলার ডাঙ্গি ইউনিয়নের ডাঙ্গি-নগরকান্দা গ্রামের লিটন হাওলাদারের স্ত্রী জাহানারা বেগম (৫০)। আ. রশীদ (৫৫) নামের এক ব্যক্তিও দুর্ঘটনায় মারা যান। তিনি চুয়াডাঙ্গার পেয়ারাতলা এলাকার মো. আলমাসের ছেলে।  বেশির ভাগ আহতরা ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়।

ভাঙ্গা ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার মো. মাহাতাব উদ্দিন জানান, অন্তত ১৫ জন আহত যাত্রীকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে, যার মধ্যে পাঁচজনের অবস্থা গুরুতর।

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, পিরোজপুর জানান, পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ায় মালবাহী ট্রলি উল্টে হেলাল উদ্দিন (২৮) নামের এক চালক নিহত হয়েছেন। উপজেলার তেলিখালী মাদরাসাসংলগ্ন সড়কে গতকাল সকালে এই দুর্ঘটনা ঘটে। হেলাল মঠবাড়িয়া উপজেলার ছোট মাছুয়া গ্রামের আব্দুল জব্বার হাওলাদারের ছেলে।

স্থানীয়দের সূত্রে জানা যায়, উপজেলার তেলিখালী থেকে ভাণ্ডারিয়া সদরে যাওয়ার পথে মাদরাসার সামনের ব্রিজ পার হওয়ার সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে ট্রলিটি সড়কের পাশে পড়ে যায়। এ সময় চাপা পড়ে হেলাল গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় তাঁকে ভাণ্ডারিয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা