kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১২ রজব ১৪৪২

পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের দাবি বিষয়ে মন্ত্রণালয়

উদ্যোগ নেওয়া সত্ত্বেও আন্দোলন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৮ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উদ্যোগ নেওয়া সত্ত্বেও আন্দোলন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত

সংক্ষিপ্ত পাঠ্যসূচিতে ক্লাস ও পরীক্ষা নেওয়াসহ চার দাবিতে গতকাল বগুড়া শহরের সাতমাথায় মানববন্ধন করেন সরকারি ও বেসরকারি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

সেশনজট নিরসনসহ চার দাবিতে দেশের বিভিন্ন জায়গায় সড়ক অবরোধ করে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীরা যে আন্দোলন করছেন, সেসব দাবির ব্যাখ্যা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গতকাল রবিবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান এক সংবাদ সম্মেলনে শিক্ষার্থীদের দাবির ব্যাখ্যা দেন। 

সচিব বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা যেসব দাবি জানিয়েছে, আমরা এরই মধ্যে সে ব্যাপারে উদ্যোগ নিয়েছি। কিন্তু এর পরও শিক্ষার্থীদের আন্দোলন উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’ তিনি বলেন, ‘ছয় মাসের কোর্সগুলো চার মাসের করা হয়েছে। ফেব্রুয়ারি থেকে ডিপ্লোমা শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। সরকারি পলিটেকনিকের ফি আমরা ওয়েভ করেছি। বেসরকারি পলিটেকনিকগুলোর সঙ্গে ফি কমানোর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। শিক্ষার্থীদের কোনো অতিরিক্ত ফি দিতে হবে না।’

শিক্ষার্থীরা অটোপাস দেওয়ার দাবি জানিয়েছে উল্লেখ করে সচিব বলেন, ‘অটোপাস দেওয়া সম্ভব নয়, কারণ তাদের ন্যূনতম যোগ্যতা অর্জন করতে হয়। এ জন্য আমরা সিলেবাস কমিয়ে এবং অনেক প্রশ্নে উত্তর দেওয়ার সুযোগ রেখে সহজ পদ্ধতিতে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। প্রতিটি বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে ৫০ নম্বরের। আর তিন ঘণ্টার পরীক্ষা দুই ঘণ্টা এবং দুই ঘণ্টার পরীক্ষা দিতে হবে দেড় ঘণ্টায়। আমরা দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ পর্বের তাত্ত্বিক পরীক্ষার সংক্ষিপ্ত সিলেবাস করেছি। আগে ১০টি প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন হতো, সেখানে এখন পাঁচটি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে পলিটেকনিক শিক্ষার্থীদের আসনসংখ্যা বৃদ্ধির দাবির বিষয়ে কারিগরি শিক্ষা সচিব জানান, ঠাকুরগাঁও, নওগাঁ, নড়াইল এবং খাগড়াছড়িতে বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় হচ্ছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে আমরা ৫০ শতাংশ শিক্ষার্থী কারিগরি ধারা থেকে এবং বাকি ৫০ শতাংশ শিক্ষার্থী সাধারণ ধারা থেকে ভর্তির সুযোগ দেব।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা