kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭। ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১। ১৩ রজব ১৪৪২

গৌরবময় ৩০ বছরে আইইউবিএটি

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১৬ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গৌরবময় ৩০ বছরে আইইউবিএটি

দেশের প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যাগ্রিকালচার অ্যান্ড টেকনোলজি (আইইউবিএটি) আজ শনিবার ৩০ বছরে পা দিল। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএর সাবেক পরিচালক ড. এম আলিমউল্যা মিয়ান ১৯৯১ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন।

এ উপলক্ষে মাসব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের চেয়ারম্যান জুবের আলিম ও উপাচার্য অধ্যাপক ড. আবদুর রব সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

দেশে প্রথম বিবিএ ও হোটেল ম্যানেজমেন্ট চালু করে আইইউবিএটি। এ ছাড়া বেসরকারিভাবে প্রথম কৃষি, নার্সিং ও মেকানিক্যাল ইঞ্জিয়ারিং চালু হয় বিশ্ববিদ্যালয়টিতে। বর্তমানে ছয়টি অনুষদের অধীনে ১১টি বিভাগ রয়েছে এখানে।

দেশের প্রতিটি গ্রাম থেকে অন্তত একজন করে গ্র্যাজুয়েট তৈরির লক্ষ্যে ‘অ্যান এনভায়রনমেন্ট ডিজাইনড ফর লার্নিং’ স্লোগানকে ধারণ করে কাজ করছে আইইউবিএটি। অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষা নিশ্চিতে আর্থিক সহযোগিতা দেয় বিশ্ববিদ্যালয়টি। এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত মেধাবৃত্তি দেওয়া হয়। উচ্চশিক্ষায় মেয়েদের উৎসাহিত করতে ১৫ শতাংশ বিশেষ বৃত্তিসহ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে ৯০টি বৃত্তি দেওয়া হয়।

শিক্ষা ও গবেষণা ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সহযোগিতামূলক সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১০৫টি বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আইইউবিএটির সমঝোতা চুক্তি রয়েছে। এর ফলে গবেষণা কার্যক্রমের পাশাপাশি স্বল্পমেয়াদি শিক্ষার্থী-ক্যাম্প পরিচালনা এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও গবেষক বিনিময় করা সম্ভব হয়।

সবুজ ক্যাম্পাস ও টেকসই উন্নয়ন বিষয়ক নীতিমালা প্রতিফলনের ভিত্তিতে বিশ্বের ৮৪টি দেশের ৯১২টি বিশ্বদ্যািলয়ের মধ্যে আইইউবিএটি ২৫৭তম স্থান দখল করেছে। এ ছাড়া বাংলাদেশে ‘গ্রিন ক্যাম্পাস’ হিসেবে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

আইইউবিএটিতে খেলার মাঠ, শহীদ মিনারসহ শিক্ষার্থীদের জন্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা রয়েছে। শিক্ষার্থীদের বিনা মূল্যে পরিবহন সেবা দিতে বাসের ব্যবস্থা রয়েছে।

শ্রেণিকক্ষে শিক্ষার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের চাকরির উপযোগী করে গড়ে তোলার জন্য পেশা বিষয়ক কর্মশালা, সেমিনার ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করে আইইউবিএটির ‘অ্যালামনাই অ্যান্ড প্লেসমেন্ট অফিস’। তাই পাস করার পরপরই আইইউবিএটির স্নাতকদের চাকরিতে ঢোকা সহজ হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা