kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ মাঘ ১৪২৭। ২৮ জানুয়ারি ২০২১। ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪২

সড়কের মান নিশ্চিত করতে তদারকি বাড়াতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ ডিসেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সড়কের মান নিশ্চিত করতে তদারকি বাড়াতে হবে

সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতির প্রথম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন। গতকাল রাজধানীর তেজগাঁওয়ের সড়ক ভবনে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অংশ নেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি : কালের কণ্ঠ

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশের সমৃদ্ধি ও অবকাঠামো উন্নয়নে প্রকৌশলীরা বড় ভূমিকা রাখছেন। আর প্রকৌশলীদের পেশাগত উন্নয়নে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় আন্তরিকভাবে কাজ করছে। গত ১০ বছরে এই মন্ত্রণালয়ে আমূল পরিবর্তন হয়েছে।

গতকাল শনিবার রাজধানীর তেজগাঁওয়ে সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতির প্রথম দ্বিবার্ষিক সম্মেলন ও ৩০তম বার্ষিক সাধারণ সভায় ভিডিও কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, একটি বিষয় লক্ষণীয় যে বিদেশ ভ্রমণ ও অফিস নির্মাণে আকর্ষণ বেশি। অনেক চেষ্টা করেও আমি এটি কমাতে পারিনি। তবে করোনার কারণে বিদেশ ভ্রমণ কমেছে। অফিস না করে রাস্তা, সড়ক ও সেতুর উন্নয়ন করুন। সড়কে শৃঙ্খলার বিষয়ে কাজ করুন।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী বলেন, ‘আগেও প্রধান প্রকৌশলীকে বারবার বলেছি যে এক্সেল লোড স্টেশনগুলো স্থাপন করুন। কিন্তু আজও তা হয়নি। এটা না থাকায় অতিরিক্ত ভারী পরিবহনের জন্য সড়ক নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। সমতল থেকে পাহাড় পর্যন্ত আমরা অনেক রাস্তা নির্মাণ করেছি। সেগুলো রক্ষণাবেক্ষণ করতে হবে। আমাদের প্রকৌশলীরা অনেক দৃষ্টিনন্দন সড়ক নির্মাণ করছেন। তাঁদের সক্ষমতা বেড়েছে। অষ্টগ্রাম ও মিঠামইন সড়ক তার দৃষ্টান্ত।’

প্রকৌশলীদের উদ্দেশ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা কাজে মনোযোগ দিন। কেউ গাফিলতি করলে সহ্য করা হবে না। দেখা যায় নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার পর বৃষ্টি হলেই রাস্তায় ফাটল দেখা দেয়। রাস্তার মান খারাপ হলে সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী, ঠিকাদার ও মনিটরিং কর্মকর্তা কেউ দায় এড়াতে পারবেন না। সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী যথাযথভাবে দায়িত্ব পালন না করায় ঠিকাদার নিম্নমানের কাজ করে। এটা বন্ধ করতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের প্রকৌশলীদের অনেক অর্জন আছে। এখন আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে সময়োপযোগী টেকসই উন্নয়ন। এখানে যে মেধাবী প্রকৌশলীরা আছেন, তাঁদের মেধার যথাযথ প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন হলে কাঙ্ক্ষিত মাত্রায় উন্নয়ন সম্ভব হবে।’

সড়ক ও জনপথ প্রকৌশলী সমিতির সভাপতি মো. আব্দুস সবুরের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী এ কে এম মনির হোসাইন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা