kalerkantho

বুধবার । ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৫ নভেম্বর ২০২০। ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

দুই কিশোরী, দুই গৃহবধূ দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৯ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ১৩ বছরের এক শিশুকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার উপজেলার উত্তর সোনাপাহাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দায়ের মামলায় কিশোরগঞ্জ জেলার বাজিতপুর থানার সাতুড়া গ্রামের সুনাম উদ্দিনের ছেলে মো. মিশু (২০) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাছিরনগর থানার কুনদা গ্রামের মো. আলীর ছেলে মো. হৃদয়কে (২২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

ফরিদপুরের বোয়ালমারীতে ১৪ বছরের এক কিশোরীকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় দায়ের মামলায় কান্দারকুল গ্রামের দবির শেখের ছেলে ইলিয়াস শেখ (২৬) একই গ্রামের শুকুর খন্দকারের ছেলে জহুর খন্দকার (২৮) এবং সৈয়দপুর গ্রামের খলিল বিশ্বাসের ছেলে আবদুল্লাহকে (২২) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার আত্মীয়ের বাড়ি যাওয়ার পথে ইজি বাইকচালক জহুর মেয়েটিকে কৌশলে গাড়িতে ওঠান। পরে একটি বাগানে নিয়ে সেখানে অন্য আসামিদের সঙ্গে ধর্ষণ করেন। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার তিনজনসহ অজ্ঞাতপরিচয় দুই-তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়।

বগুড়ার শেরপুরের বিশালপুর ইউনিয়নে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক গৃহবধূকে দলবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের মামলায় গ্রামের মাতবরসহ তিন আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। গ্রেপ্তার তিনজন হলেন জামাইল স্কুলপাড়ার হাসান আলীর ভাসানের ছেলে রবিউল ইসলাম রুবেল (১৯), জামাইল হাটখোলা পাড়ার বাচ্চু ফকিরের ছেলে আব্দুল জলিল (৩২) এবং জামাইল মজলিশী পাড়ার খোকা প্রামাণিকের ছেলে মাতবর সাইফুল ইসলাম (৫৫)। জামাইল মজলিশী পাড়ার দিনমজুরের বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী স্ত্রীকে (২২) রুবেল ও জলিল ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ। পরে সালিসের মাধ্যমে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা চালান গ্রাম্য মাতবররা।

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার সোনাপাড়ার জাহিদুল ইসলাম রতনের সঙ্গে মোবাইলে পরিচয় হয় একই উপজেলার এক গৃহবধূর। মাঝেমধ্যে তাঁদের মোবাইলে কথা হতো। গত সোমবার দুপুরে স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া হয় গৃহবধূর। বিকেলে রতন মোবাইলে ফোন দিয়ে বিয়ের প্রস্তাব দেন। গৃহবধূও সাতপাঁচ না ভেবে রাজি হয়ে বাড়ি ছাড়েন। পরে রতন (২৫) ও তাঁর সহযোগী পঞ্চগড় পৌরসভার নিমনগরের শহিদুল ইসলাম (২৭) মাইক্রোবাসে গৃহবধূকে রাতভর আটকে রেখে ধর্ষণ করেন। সহযোগিতা করেন সানাপাড়ার অটোরিকশাচালক আমিরুল ইসলাম (৩০) ও পঞ্চগড় সদর উপজেলার ধাক্কামারা ইউনিয়নের শিকারপুর এলাকার নুর আলম (২৪)। এ ঘটনায় মঙ্গলবার দায়ের মামলায় চারজনকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

মোবাইলে তাঁদের পরিচয়, সম্পর্ক। অভিযোগ, বিয়ের কথা বলে বাড়িতে মেয়েটিকে (১৯) ডেকে নিয়ে ধর্ষণ করেন তরুণ। পরদিন কৌশলে পালিয়ে আসেন মেয়েটি। এ ঘটনায় দায়ের মামলায় ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার কাঁঠালডাঙ্গা গ্রামের বিসুর উদ্দিনের ছেলে রফিকুল ইসলামকে গতকাল গ্রেপ্তার করেছে মদন থানা পুলিশ। মেয়েটির বাড়ি এই থানায়। গত ২৩ অক্টোবর ধর্ষণের ঘটনা ঘটে। গতকাল রফিকুলকে ডেকে এনে পুলিশে ধরিয়ে দেওয়া হয়।

বাগেরহাটে এক পোশাককর্মী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় দায়ের মামলায় এক ইউপি সদস্যসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার রাতে দুর্গাপূজা দেখে বাড়ি ফেরার পথে সদর উপজেলার বাকপুরা গ্রামে ওই তরুণীকে বারুইপাড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য শেখ মিজানুর রহমান (৪৬) ধর্ষণ করেন বলে অভিযোগ। গ্রেপ্তার অন্যরা হলেন অমল মৃধার ছেলে বিকাশ মৃধা (১৯), নারায়ণ চন্দ্র সরকারের ছেলে সুকান্ত সরকার (৩২), অসীম বিশ্বাসের ছেলে বিধান বিশ্বাস (২৮) এবং মো. আনোয়ার ফকিরের ছেলে মো. সোহেল ফকির (২৩)। তাঁদের সবার বাড়ি চিন্তারখোড় গ্রামে। ইউপি সদস্য মিজানুর তরুণীকে ধর্ষণের পর গ্রেপ্তার অন্য চারজনসহ ১২-১৩ জন তাঁকে নানাভাবে যৌন হয়রানি করেন।

নওগাঁর বদলগাছীতে নানাবাড়িতে পাঁচ বছরের শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। গত শনিবার রসুলপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার পাশের বাড়ির ১৪ ও ১০ বছরের দুই ছেলের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। আসামিরা পলাতক।

শেরপুরের শ্রীবরদীতে সাত বছরের এক শিশুকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে গতকাল বুধবার মামলা হয়েছে। গত সোমবার দুপুরে চকোলেট দেওয়ার কথা বলে ওই শিশুকে ধর্ষণচেষ্টা করেন রুমান (২৫)। তিনি উপজেলার কাকিলাকুড়া ইউনিয়নের চিথলিয়াপাড়ার দিলু মিস্ত্রির ছেলে।

খাগড়াছড়িতে এক কিশোরী গৃহকর্মীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে করা মামলায় রবিউল ইসলামকে (২৬) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার রাতে শহরে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী সুইচিং থুই মারমার বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। রবিউলের বাড়ি নয়নপুর এলাকায়। তিনি পৌর এলাকার ৮ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের কর্মী বলে জানা গেলেও আওয়ামী লীগ তা অস্বীকার করেছে।

 [প্রতিবেদনে তথ্য দিয়েছেন নিজস্ব প্রতিবেদক, ফরিদপুর এবং প্রতিনিধি, বদলগাছী, মহাদেবপুর (নওগাঁ), বাগেরহাট, মদন (নেত্রকোনা), ধুনট (বগুড়া), পঞ্চগড়, মিরসরাই (চট্টগ্রাম), শ্রীবরদী (শেরপুর), খাগড়াছড়ি]

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা