kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

চেয়ারম্যান মেম্বারের বিরুদ্ধে অপহরণ ধর্ষণের অভিযোগ

পৃথক স্থানে আরো চার মামলা, গ্রেপ্তার ৫

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৬ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে এক নারীকে অপহরণ করে আটকে রেখে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে একটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, সদস্যসহ (মেম্বার) পাঁচজনের নামে মামলা হয়েছে। ভুক্তভোগী গত ১৮ অক্টোবর হবিগঞ্জে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৩-এ মামলাটি করলেও গতকাল রবিবার বিষয়টি প্রকাশ পায়। বিচারক মোহাম্মদ হালিম উল্লাহ চৌধুরী মামলাটি রেকর্ড করে তিন কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে নবীগঞ্জ থানার ওসিকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এদিকে ফরিদপুরের সালথায় তরুণীকে বিয়ের কথা বলে ঢাকার আশুলিয়ায় এনে পাঁচ দিন ধর্ষণের পর ভুয়া বিয়ে করার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় প্রধান অভিযুক্তসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আরো পাঁচ জেলায় শিশুসহ তিনজনকে ধর্ষণের অভিযোগে তিনটি মামলা ও দুটি ধর্ষণচেষ্টা মামলার দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নবীগঞ্জের ঘটনায় মামলার আসামিরা হলেন উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান হারুন (৫০) ও সদস্য দুলাল আহমদ (৪০), সেবুল মিয়া (২৮), সহিদুল মিয়া (২৫), জিবু মিয়া (২৭) ও অজ্ঞাতপরিচয় তিনজন। মামলা সূত্রে জানা যায়, আউশকান্দির ভুক্তভোগী গত ৮ অক্টোবর বিকেলে রিকশাযোগে শেরপুর বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। তিনি পারকুল গ্রামের মেম্বার দুলাল মিয়ার বাড়ির সামনে আসামাত্র আসামিরা তাঁকে জোর করে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশায় তুলে নিয়ে যান। তাঁকে তিন দিন আটক রেখে ধর্ষণ করেন আসামিরা। চতুর্থ দিনে আসামিরা আউশকান্দি বাজারের একটি রেস্টুরেন্টের সামনে অটোরিকশা থেকে তাঁকে নামিয়ে দিয়ে চলে যান।

মামলার বাদীর স্বামীর অভিযোগ, চেয়ারম্যান ও মেম্বারের পক্ষ থেকে চাপ সৃষ্টি করে, হুমকি-ধমকি দিয়ে মামলার সাক্ষীদের কাছ থেকে এফিডেভিট করার চেষ্টা করছেন। তাঁকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছেন। এতে তিনি বাড়িতে যাওয়ার সাহস পাচ্ছেন না।

অভিযুক্ত চেয়ারম্যান মুহিবুর রহমান হারুন বলেন, ‘আমি শুনেছি নারী নির্যাতন মামলা হয়েছে।’ ইউপি সদস্য দুলাল আহমদ বলেন, ‘এই রকম ঘৃণিত কাজের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই। আমাকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হচ্ছে।’

তরুণীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৩ : ফরিদপুরের সালথার ঘটনায় গতকাল থানায় অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা করেন ভুক্তভোগী তরুণীর বাবা। গতকালই বোয়ালমারী উপজেলা থেকে গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন সালথার যদুনন্দী ইউনিয়নের খারদিয়া গ্রামের মাংস ব্যবসায়ী মূল অভিযুক্ত এনায়েত হোসেন মৃধা (৪২), কথিত কাজি বছিরুল ইসলাম বাছীর (৪০) ও তাঁর ভাই হোসাইন মোল্লা (২৭)। এজাহার সূত্রে জানা যায়, সালথার ওই তরুণীর সঙ্গে মোবাইল ফোনে এনায়েতের পরিচয় হয়। গত ২ অক্টোবর বিকেলে বিয়ে করার কথা বলে তরুণীকে স্থানীয় বাহিরদিয়া বাজার থেকে কৌশলে গাড়িতে উঠিয়ে ঢাকার আশুলিয়ায় নিয়ে যান এনায়েত। সেখানে বাসা ভাড়া নিয়ে তরুণীকে পাঁচ দিন ধর্ষণ করেন তিনি। এরপর ধর্ষণের অভিযোগ থেকে বাঁচতে ৮ অক্টোবর সালথার পাশের বোয়ালমারীতে এসে এক ব্যক্তিকে কাজি ও তাঁর ভাইকে সাক্ষী বানিয়ে তরুণীর কাছ থেকে স্বাক্ষর নিয়ে সাজানো কাবিননামা করেন এনায়েত। পরে তাঁরা স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বাড়িতে আসেন। এরপর তরুণীকে তাঁর বাবার বাড়িতে দিয়ে আসে এনায়েতের পরিবার। স্থানীয়রা জানায়, এনায়েত এ পর্যন্ত অন্তত পাঁচটি বিয়ে করেছেন।

অষ্টগ্রামে ২০ দিন পর মামলা, গ্রেপ্তার ২ : কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রামে এক গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা করেছেন গৃহবধূর স্বামী। গত ৪ অক্টোবর রাতে ঘটনাটি ঘটে। কিন্তু স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা নির্যাতিতাকে আইনের আশ্রয় নেওয়ার সুযোগ না দিয়ে আপস-মীমাংসা করে দেওয়ার কথা বলেও তা করেননি। পরে গত শনিবার মামলাটি করা হয়।

চকোলেট দেওয়ার কথা বলে শিশু ধর্ষণ : শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে এক শিশুকে (৮) ধর্ষণের অভিযোগে তার চাচাতো ভাইয়ের (১৬) বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। গত শনিবার রাতে শিশুটির বাবা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভেদরগঞ্জ থানায় মামলাটি করেন। অভিযুক্ত কিশোরের বাড়ি উপজেলার বাসুদেব এলাকায়। এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ১৭ অক্টোবর দুপুরে চকোলেট দেওয়ার কথা বলে শিশুটিকে বাড়ির পাশে বাগানে নিয়ে ধর্ষণ করে ওই তরুণ।

ভালুকায় ‘প্রেমিকের’ বিরুদ্ধে মামলা : ময়মনসিংহের ভালুকায় গত শনিবার রাতে ‘প্রেমিকের’ বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেছেন প্রেমিকা। আসামি গোলাম রসুল অপু (২২) বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার দুর্গাপুর গ্রামের মোখলেছুরের ছেলে। মামলার বাদী পোশাককর্মীর বাড়ি শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জ উপজেলায়। মামলা ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ভালুকার হবিরবাড়ী ইউনিয়নে ভাড়া বাসায় থেকে পোশাক কারখানায় চাকরি করেন ভুক্তভোগী। ফেসবুকের মাধ্যমে অপুর সঙ্গে তাঁর পরিচয় ও প্রেম হয়। গত ২৯ আগস্ট রাতে তাঁর ভাড়া বাসায় এসে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে তাঁর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক করেন অপু। পরে তাঁরা স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে সেখানে বসবাস করতে থাকেন। এর মধ্যে বিয়ে না করে ৮ অক্টোবর চাকরির কথা বলে গাজীপুরের উদ্দেশে বের হয়ে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন অপু।

ধুনট ও রায়পুরে গ্রেপ্তার ২ : বগুড়ার ধুনটে গৃহবধূকে (৩৫) ধর্ষণচেষ্টা ও কুপিয়ে জখম করার অভিযোগে করা মামলার আসামি জাহাঙ্গীর আলমকে (২৮) শনিবার রাতে বগুড়ায় হাসপাতাল থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। জাহাঙ্গীর উপজেলার অলোয়া গ্রামের মোহাম্মদ আলীর ছেলে। গতকাল তাঁকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। অন্যদিকে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে ২১ অক্টোবর ঘরে ঢুকে গৃহবধূ ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি মোহন মিয়াকে শনিবার রাতে উপজেলার চরইন্দুরিয়া গ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তিনি চরইন্দুরিয়ার আলম আলী মাঝির ছেলে।

[প্রতিবেদনটি তৈরিতে তথ্য দিয়েছেন কালের কণ্ঠ’র নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা]

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা