kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

ঘরে ঢুকল পিকআপ, প্রাণ গেল শিশুর

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৪ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গোপালগঞ্জ সদরে একটি পিকআপভ্যান বসতঘরে ঢুকে প্রাণ কেড়েছে তাসফিয়া খানম (৩) নামের এক শিশুর। এ সময় তার ভাই রাব্বি সিকদার (৬) গুরুতর আহত হয়েছে। তারা সদর উপজেলার গোপিনাথপুর উত্তরপাড়ার চান মিয়া সিকদারের সন্তান। এ ছাড়া জেলার কাশিয়ানী ও মুকসুদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আরো দুজনের প্রাণ গেছে।

পিকআপ দুর্ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল দুপুরে। এ ঘটনায় পুলিশ ঘাতক পিকআপভ্যানের ড্রাইভার ইমরান মোল্লাকে (১৮) আটক করেছে। তিনি গাজীপুর জেলার মৌচাক এলাকায় আমীর হামজার ছেলে।

গোপালগঞ্জ সদর থানার গোপিনাথপুর পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক আবু নাইম জানিয়েছেন, গাজীপুর থেকে বাগেরহাটগামী পিকআপভ্যান নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পাশে চান মিয়া সিকদারের বসতঘরে ঢুকে পড়ে। এ সময় পিকআপের চাপায় শিশু তাসফিয়া ঘটনাস্থলে নিহত এবং তার ভাই রাব্বি গুরুতর আহত হয়। স্থানীয়রা হতাহতদের উদ্ধার করে। পরে আহত রাব্বিকে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে জেলার কাশিয়ানী ও মুকসুদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আরো দুজনের প্রাণ গেছে। কাশিয়ানী থানার ওসি মো. আজিজুর রহমান জানান, সকালে প্রাইভেট কারে করে ফরিদপুরের ভাঙ্গা থেকে নন্দন দত্ত ও কার্ত্তিক মণ্ডল নামের দুই ব্যক্তি খুলনা যাচ্ছিলেন। তাঁদের প্রাইভেট কারটি ধূসর ব্রিজের কাছে পৌঁছালে চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশের রেইনট্রির সঙ্গে ধাক্কা লাগান। এতে প্রাইভেট কারটি দুমড়েমুচড়ে গিয়ে চালকসহ তিনজন আহত হন। আহতদের উদ্ধার করে কাশিয়ানী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পর প্রাইভেট কারচালক শাহিনের মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে গত বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের মুকসুদপুর উপজেলার কলেজ মোড়ে মাইক্রোবাসচাপায় খুশি বেগম (৫০) নামের এক নারী নিহত হয়েছেন। নিহত খুশি বেগমের বাড়ি জেলার মুকসুদপুর উপজেলার প্রভাকরদী গ্রামে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা