kalerkantho

সোমবার । ১০ কার্তিক ১৪২৭। ২৬ অক্টোবর ২০২০। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

বাচ্চুহীন দুই বছর

বিশেষ প্রতিনিধি   

১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাচ্চুহীন দুই বছর

সুরের ঝংকারে দেশ মাতিয়েছিল যে এলআরবি, সেই বিখ্যাত ব্যান্ডের নাম আর মঞ্চে উচ্চারিত হবে না। রুপালি গিটার হাতে দেশ মাতানো ব্যান্ড তারকা কিংবদন্তি শিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুর পর ব্যান্ডটি নিয়ে দলের শিল্পীদের নানামুখী তৎপরতার কারণে পরিবারের পক্ষ থেকে এই নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। বিবদমান দুই পক্ষই তা মেনে নিয়েছে। আইয়ুব বাচ্চুবিহীন দুই বছর পার হচ্ছে আজ রবিবার। বাচ্চুভক্তদের জন্য তাঁর দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী দিনের সুসংবাদ—সরকারিভাবে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে আইয়ুব বাচ্চুর গান সংরক্ষণের। তিনিই প্রথম বাংলাদেশি সংগীত তারকা, যাঁর গান সরকারি ব্যবস্থাপনায় সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

জানা যায়, আইয়ুব বাচ্চু জীবদ্দশায় তাঁর প্রতিষ্ঠিত ব্যান্ডদল এলআরবি, ‘এলআরবি’ নামসংবলিত লোগো এবং এককভাবে তাঁর রচিত, সুরারোপিত ও নিজ কণ্ঠে পরিবেশিত ২৭টি অ্যালবাম এবং অ্যালবামের গান বাংলাদেশ কপিরাইট অফিসে তাঁর নিজ নামে নিবন্ধন করে গেছেন। এই কপিরাইটের উত্তরাধিকার এখন আইয়ুব বাচ্চুর পরিবার, তাঁর সন্তানরা।

আইয়ুব বাচ্চুর দুই সন্তান ফাইরুয সাফরা আইয়ুব ও আহনাফ তাযওয়ার আইয়ুব গত আগস্টে এক বিবৃতিতে জানান, তাঁরা চান না বাংলা ব্যান্ডজগতে জনপ্রিয়তার শীর্ষে থাকা ব্যান্ডটির নামের কেউ অপব্যবহার করুক। তাই এর পর থেকে পরিবারের অনুমোদন ছাড়া এলআরবির নামে কোনো কার্যক্রম পরিচালনা হবে বাংলাদেশ কপিরাইট আইন লঙ্ঘন ও শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আইয়ুব বাচ্চুর প্রয়াণের পর দুই ভাগ হয়ে পড়া ব্যান্ডটির উভয় পক্ষ এই সিদ্ধান্তটি মেনে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা