kalerkantho

শনিবার । ৮ কার্তিক ১৪২৭। ২৪ অক্টোবর ২০২০। ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

ধর্ষণের অভিযোগে ধর্মযাজক গ্রেপ্তার

আরো ছয় নারী শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগ গৃহবধূ অন্তঃসত্ত্বা

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



রাজশাহীর তানোরে ক্ষুদ্রজাতির এক কিশোরীকে তিন দিন আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগে একটি গির্জার ফাদারকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। গত মঙ্গলবার রাতে রাজশাহী নগরের আমচত্বরসংলগ্ন বিশপ হাউস থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে রাতেই তানোর থানায় ফাদারের বিরুদ্ধে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন কিশোরীটির বড় ভাই।

এদিকে রাজশাহীর বাঘায় এক নারীকে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ধর্ষণ ও এতে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। শরীয়তপুরের ভেদরগঞ্জে উপজেলার সখিপুর থানায় এক নারীকে (২০) ধর্ষণের অভিযোগে একজন এবং সিলেটে স্কুলছাত্রীকে (১২) ধর্ষণচেষ্টার ঘটনায় তিনজন ও নীলফামারীর সৈয়দপুরে অষ্টম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শেরপুরে ঝিনাইগাতীতে নারী (৩০) ও ঢাকার কেরানীগঞ্জে প্রতিবন্ধী শিশুকে (১০) ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

রাজশাহী : গ্রেপ্তার হওয়া প্রদীপ গ্যাগরী (৫০) তানোর উপজেলার মুণ্ডুমালা মাহালীপাড়ার ‘সাধুজন মেরি ভিয়ান্নি গির্জার’ ফাদার। র‌্যাব-৫-এর রাজশাহীর কম্পানি অধিনায়ক এ টি এম মাইনুল ইসলাম জানান, ধর্ষণের খবর পাওয়ার পর থেকেই পলাতক প্রদীপ গ্যাগরীকে আটকের জন্য মাঠে নামে র‌্যাব। পরে তাঁকে তানোর থানায় হস্তান্তর করা হয়।

কিশোরীর পরিবার জানায়, গত ২৬ সেপ্টেম্বর সকালে বাড়ির পাশে গির্জাটির কাছে ঘাস কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হয় কিশোরীটি। ২৭ সেপ্টেম্বর নিখোঁজের সাধারণ ডায়েরি করেন কিশোরীর ভাই। ২৮ সেপ্টেম্বর গির্জার ফাদারের ভবনের ছাদে কিশোরীকে দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করতে গেলে ফাদার বাধা দেন। এ সময় স্থানীয়রা রাজশাহীর জেলা ধর্ম প্রদেশের ইনচার্জকে বিষয়টি ফোনে জানায়। তিনি সোমবার দুপুরে রাজশাহী ধর্ম প্রদেশের তিনজন প্রতিনিধি ফাদারকে পাঠান তানোরের ওই গির্জাতে। পরে তাঁরা স্থানীয় গ্রামপ্রধান মাইকেল হেমরণ ও মহেষ মুরমু এবং আদিবাসী পারগানা পরিষদের সভাপতি কামেল মার্ডীকে নিয়ে সালিস বৈঠকে বসেন। বৈঠকে ফাদার প্রদীপকে অপসারণ করা হয়।

কামেল মার্ডী বলেন, কিশোরীর ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে আপস করা হয়েছে। সালিসের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কিশোরীকে গির্জার ভেতরে সিস্টারদের কাছে রাখা হয় এবং ফাদার প্রদীপকে রাজশাহীতে পাঠানো হয়। তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসান জানান, গতকাল বুধবার ফাদার প্রদীপকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে এবং ভুক্তভোগীকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

বাঘা : গত মঙ্গলবার রাতে বাঘা থানায় মামলাটি করেন ভুক্তভোগী নারী। আসামি বাদশা আলম বাঘা উপজেলার তুলশিপুর গ্রামের ইদ্রিশ আলীর ছেলে ও মুদি দোকানদার। ওই নারী পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।

শরীয়তপুর : মঙ্গলবার গ্রেপ্তারকৃত আব্দুর রহমান  সোহাগ শেখ (৩০) সখিপুর থানার পূর্ব বালাকান্দি (ভাড়াটিয়া) গ্রামের মৃত আবুল শেখের ছেলে। অভিযোগ মতে, গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে ওই নারীকে ধর্ষণ করেন সোহাগ। আর এতে সোহাগকে সহায়তা করেন সখিপুরের বালাকান্দি গ্রামের আলমগীর দেওয়ান (৫৫), ফয়সাল দেওয়ান (৩৫) ও অজ্ঞাতপরিচয় এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী সোহাগকে আসামি করে সখিপুর থানায় মামলা করেছেন। তাঁর স্বামী বলেন, ‘এ ঘটনায় আমি মামলার বাদী হতে চেয়েছি। কিন্তু পুলিশ আমার স্ত্রীকে বাদী করেছে। আর আলমগীর, ফয়সাল ও অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিকে মামলা থেকে বাদ দিয়ে দিয়েছে।’

সখিপুর থানার ওসি মো. আসাদুজ্জামান হাওলাদার বলেন, ভুক্তভোগীর স্বামী পূর্বশত্রুতার জেরে স্থানীয় কয়েকজনের নাম মামলায় ঢোকাতে চাচ্ছেন।

সৈয়দপুর : গতকাল সৈয়দপুর শহরের নয়াটোলা কলিমনগরের ঘটনায় গ্রেপ্তার মামুন ইসলাম (২১) নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার কুতুবপুরের মো. নুর ইসলামের ছেলে ও অটোরিকশাচালক। এ ঘটনায় ছাত্রীটির মা সৈয়দপুর থানায় মামলা করেছেন।

সিলেট : নগরের বাদামবাগিচা এলাকায় মঙ্গলবার রাতের ঘটনায় ভুক্তভোগী স্কুলছাত্রীর মায়ের করা মামলায় গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলার নূরপুর গ্রামের আলাউদ্দিন মিয়ার ছেলে পাভেল আহমদ (২৫), হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার ওয়ারিতা গ্রামের মুশাহিদ মিয়ার ছেলে আব্দুল মোতালিব (২২) ও দৌলতপুর গ্রামের আছদ্দর মিয়ার ছেলে রাজন মিয়া (২৪)। মামলার আরেক আসামি জহিরুল (২০) বাদামবাগিচা এলাকার বাসিন্দা।

শেরপুর : ঝিনাইগাতী উপজেলার উত্তর ডেফলাই গ্রামে গত মঙ্গলবার বিকেলে ঘটনাটি ঘটে। অভিযুক্ত ডেফলাই গ্রামের বাদশা আলীর ছেলে বিল্লাল হোসেন (৪৫) গাঢাকা দিয়েছেন। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করা হয়েছে।

কেরানীগঞ্জ : গত মঙ্গলবারের ঘটনায় গতকাল ভুক্তভোগী শিশুটির মা দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। অভিযুক্ত ব্যক্তির নাম রনি। তিনি দক্ষিণ শুভাঢ্যা সাবান ফ্যাক্টরি রোড এলাকার কাশেম মিয়ার দূর সম্পর্কের ভাগ্নে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা