kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

মোংলা পৌরসভা

নির্বাচন প্রশ্নে মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



স্থানীয় সরকার বিভাগের অধীন প্রথম শ্রেণির মোংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচন পরিকল্পিতভাবে পাঁচ বছর ধরে আটকে রাখা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী। নির্বাচন নিয়ে এই অচলাবস্থা নিরসন ও পৌরসভার অনিয়ম-দুর্নীতি বন্ধে স্থানীয় সরকার মন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছে তারা। গতকাল সোমবার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বরাবর এলাকাবাসীর পক্ষে সুন্দরবন ও উপকূল সুরক্ষা আন্দোলনের নির্বাহী সদস্য সাকিলা পারভীন লিখিত এ আবেদন করেন।

আবেদনে বলা হয়, মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার প্রায় পাঁচ বছর পেরিয়ে গেলেও মোংলা পৌরসভায় সাধারণ নির্বাচন হচ্ছে না। নির্ধারিত সময়ে নির্বাচন না হওয়ায় পাঁচ বছরের জন্য নির্বাচিতরা অতিরিক্ত আরো প্রায় পাঁচ বছর ধরে দায়িত্ব পালন করছেন। এতে পৌরসভার উন্নয়ন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। একই সঙ্গে সেখানে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা চলছে। তাই স্থানীয় সচেতন সমাজ পৌর মেয়রকে অপসারণ করে অবিলম্বে প্রশাসক নিয়োগসহ দুর্নীতি ও অনিয়মের বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানাচ্ছে।

আবেদনে আরো বলা হয়, সর্বশেষ ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি মোংলা পোর্ট পৌরসভায় অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো. জুলফিকার আলী মেয়র নির্বাচিত হন। কাউন্সিলর পদেও সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় বিএনপি-জামায়াত। তাঁদের মেয়াদ শেষে ২০১৬ সালে পৌরসভায় আবার নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে মেয়র লোক দিয়ে পরিকল্পনা করে মিথ্যা ও ভুয়া সীমানা জটিলতা মামলা করান।

মন্তব্য