kalerkantho

শনিবার । ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৮ নভেম্বর ২০২০। ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

যোগাভ্যাস

শোল্ডার শ্রাগ

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শোল্ডার শ্রাগ

জীবনভর নানা কাজকর্ম সামলাতে গিয়ে হাত ও কাঁধের ওপর যথেষ্ট চাপ পড়ে। বয়স বাড়লে কাঁধ ও ঘাড়ের ব্যথায় কাবু হতে হয়। নিয়ম করে কাঁধের কয়েকটি আসন অভ্যাস করলে কাঁধের অস্থিসন্ধি সচল থাকে। দাঁড়িয়ে আসন করতে সমস্যা হলে দিনের শুরুতেই চেয়ারে বসেই শোল্ডার শ্রাগ অভ্যাস করুন

পদ্ধতি

মাটিতে দুই পা রেখে মেরুদণ্ড আরামদায়কভাবে সোজা রেখে চেয়ারে বসুন। মাথা ও ঘাড় সোজা থাকবে। দুই হাত আলগা করে রাখুন কোলের ওপর। চোখ বন্ধ করুন। এই হলো আসন শুরুর অবস্থান।

পদ্ধতি ১ : দুই হাত চেয়ারের পাশে আলতো করে ঝুলিয়ে দিন। এবার শ্বাস নিতে নিতে দুই কাঁধ কান পর্যন্ত উঁচু করুন। শ্বাস ছাড়তে ছাড়তে কাঁধ নামিয়ে নিন।

♦ এভাবে ৭-১০ রাউন্ড অভ্যাস করতে হবে। তবে জোর করে কাঁধ ওঠানোর চেষ্টা করবেন না। যেটুকু সম্ভব হবে সেটুকুই অভ্যাস করবেন।

পদ্ধতি ২ : দুই হাত চেয়ারের পাশে ঝুলিয়ে দিন। এবার ধীরে ধীরে শ্বাস নিতে নিতে বাঁ কাঁধ কানের নিচে তুলুন। শ্বাস ছাড়তে ছাড়তে কাঁধ নামান। একইভাবে শ্বাস নিতে নিতে ডান দিকের কাঁধ কান পর্যন্ত তুলে শ্বাস ছাড়তে ছাড়তে নামিয়ে নিন।

♦ দুই কাঁধ তোলা ও নামানো হলে এক রাউন্ড হয়। এভাবে ১০-১২ রাউন্ড অভ্যাস করতে হবে।

জোর করে অভ্যাস করার দরকার নেই। কষ্ট হলে অভ্যাস করা থামিয়ে দিতে হবে। শুরুতে অল্পস্বল্প অভ্যাস করতে পারেন।

♦ আসন অভ্যাস শেষ হলে শুরুর অবস্থানে ফিরে আরাম করে বসুন। চোখ বন্ধ করে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিন।

সতর্কতা

যাঁরা দীর্ঘক্ষণ ডেস্কে বসে কাজ করেন, তাঁরা কাজের ফাঁকে এই আসনটি অভ্যাস করলে ঘাড় ও কাঁধের স্টিফনেস চলে যাবে। বয়স্ক মানুষরা আসন অভ্যাসের সময় ধীরে ধীরে কাঁধ তোলার চেষ্টা করবেন। নইলে আচমকা ব্যথা লেগে যেতে পারে।

উপকারিতা

ফ্রোজেন শোল্ডারের মতো ব্যথা-বেদনা ও হাত নাড়াচাড়ার অসুবিধা দূর হয়। বিশেষ করে টানা কম্পিউটারের কাজ বা ভারী ব্যাগ বহন করলে কাঁধের ব্যথায় কষ্ট পেতে হয়। শোল্ডার শ্রাগিং অভ্যাস করলে ব্যথার কষ্ট থেকে মুক্তি পাওয়ার পাশাপাশি কাজে বাড়তি এনার্জি পাওয়া যায়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা