kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৩ কার্তিক ১৪২৭। ২৯ অক্টোবর ২০২০। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

সংক্ষিপ্ত

হত্যার পর মায়ের লাশ গুমের অভিযোগ কিশোর গ্রেপ্তার

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মা মানসিক রোগী। ছেলে (১৬) খাবার চাওয়ায় তিনি ক্ষুব্ধ হন। এ অবস্থায় লাকড়ি দিয়ে মায়ের মাথায় আঘাত করে ছেলে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মা। পরে একটি নৌকায় করে কিছু দূরে নিয়ে সেখানে শুকাতে দেওয়া কাঠের স্তূপে মায়ের লাশ রেখে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় ছেলে। লোমহর্ষক ঘটনাটি গত ২৭ জুন রাতের; ঘটনাস্থল গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার কালিকাবাড়ী গ্রাম।

গতকাল শুক্রবার বিকেলে গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন এসব কথা জানান। তিনি জানান, গত বৃহস্পতিবার রাতে নিহত হাসি পাণ্ডে ও মনোরঞ্জন পাণ্ডের বড় ছেলেকে (১৬) গ্রেপ্তার করা হয়। সে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে মাকে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। লাশ পুড়িয়ে গুম করার কথাও স্বীকার করেছে সে। গতকাল বিকেলে ছেলেটিকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, এ ঘটনার পর ছেলেটি মিথ্যা নাটক করে মাকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করে এবং পরে বাবাকে দিয়ে নানা জুড়ান বাড়ৈসহ চারজনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করায়। এতে জুড়ান বাড়ৈ ক্ষুব্ধ হয়ে উল্টো যৌতুকের জন্য মেয়েকে মারধর করে হত্যার অভিযোগ এনে জামাই মনোরঞ্জন পাণ্ডেসহ পাঁচজনকে আসামি করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেন। এরপর তদন্তে নামে পুলিশ। সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার রাতে নিহত হাসি পাণ্ডের বড় ছেলেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মন্তব্য