kalerkantho

রবিবার । ৯ কার্তিক ১৪২৭। ২৫ অক্টোবর ২০২০। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই পাবনা বিএনপির হাঙ্গামা

পাবনা ও ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের সামনেই গতকাল সোমবার বিকেলে সংঘর্ষে জড়িয়েছেন পাবনা জেলা বিএনপির দুই পক্ষের নেতাকর্মীরা। ঈশ্বরদীর সাহাপুর মালিথাপাড়া এলাকায় এই সংঘর্ষের ঘটনায় জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদকসহ চারজন ছুরিকাহত হয়েছেন। কেন্দ্রীয় নেতারা আসন্ন পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনের প্রচারের অংশ হিসেবে ওই সময় দলীয় প্রার্থী জেলা বিএনপির আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান হাবিবের বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

পুলিশ, স্থানীয় ও দলীয় সূত্র থেকে জানা যায়, পাবনা-৪ আসনে উপপনির্বাচনে প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিতে গতকাল বিএনপির কেন্দ্রীয় যুগ্ম ভাইস চেয়ারম্যান আমানউল্লাহ আমান, অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, খায়রুল কবীর খোকন, নাজিমুদ্দিন আলমসহ কেন্দ্রীয় নেতারা ঈশ্বরদীতে এসে পৌঁছান। কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশে বসা নিয়ে পাবনা থেকে আসা জেলা বিএনপির দুই পক্ষ প্রথমে বাগিবতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। পরে তা সংঘর্ষে রূপ নেয়। বিএনপি প্রার্থী হাবিবুর রহমান হাবিব জানান,  এটা বড় কোনো ঘটনা নয়। সংঘর্ষের পর দুই পক্ষের লোকজন পাবনা ফিরে গেলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসে।

এদিকে জেলা বিএনপির মুখপাত্র বলে পরিচিত জেলা বিএনপির সাবেক দপ্তর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম জানান, সংঘর্ষে জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক হিমেল রানা, জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন, সহসাংগঠনিক সম্পাদক সাব্বির হোসেন এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক আজমল হোসেন রানা ছুরিকাহত হয়েছেন। তাঁদের পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালের অর্থপেডিকস বিভাগের কনসালট্যান্ট ডা. আল আকসার মাসুর জানান, হাসপাতালে ভর্তি হওয়া চারজনই ছুরিকাহত ছিলেন। অবস্থার অবনতি হওয়ায় চারজনের মধ্যে হিমেল রানা ছাড়া বাকি তিনজনকেই ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা