kalerkantho

রবিবার । ৯ কার্তিক ১৪২৭। ২৫ অক্টোবর ২০২০। ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথ

বন্ধের আট দিন পর পরীক্ষামূলক চলাচল

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি ও শিবচর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



- তিন ফেরির একটি আটকাল ডুবোচরে

- আজ থেকে স্বাভাবিক চলাচলের আশা

টানা আট দিন বন্ধ থাকার পর গতকাল শুক্রবার বিকেলে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথে পরীক্ষামূলক ফেরি চলাচল করেছে। তবে তিন ফেরির মধ্যে একটি মাঝপথে আধাঘণ্টা ডুবোচরে আটকে থেকে গন্তব্যে পৌঁছায়। রাতে বন্ধ থেকে আজ শনিবার ফের ফেরি চলাচল শুরু হওয়ার কথা।

গতকাল বিকেল সাড়ে ৪টায় কিশোরী, ক্যামেলিয়া ও রো রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর যানবাহন নিয়ে শিমুলিয়া ঘাট থেকে কাঁঠালবাড়ীর উদ্দেশে ছেড়ে যায়। তবে বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর মাঝপথে ডুবোচরে আটকে যায়। পরে সেটিকে জাহাজ দিয়ে ঠেলে উদ্ধার করা হয়।

নাব্যতা সংকটে গত ৩ সেপ্টেম্বর থেকে দেশের গুরুত্বপূর্ণ এই নৌপথে ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন সংস্থার (বিআইডাব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের এজিএম মো. শফিকুল ইসলাম জানান, ড্রেজিং শেষে শুক্রবার বিকেলে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডাব্লিউটিএ) চ্যানেল খুলে দেয়। বিকেল সাড়ে ৪টায় শিমুলিয়া ঘাট থেকে যানবাহন নিয়ে ক্যামেলিয়া, কাকলী ও রো রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর কাঁঠালবাড়ী ঘাটের উদ্দেশে রওনা দেয়। ড্রেজিং করা লৌহজং টার্নিং পয়েন্ট চ্যানেলের মুখে আটকে যায় রো রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর। ফলে পেছনে থাকা ফেরি ক্যামেলিয়াও আর এগোতে পারেনি। পরে বিআইডাব্লিটিএর ড্রেজিং কাজে ব্যবহৃত ছোট জাহাজ ক্ষণিকা দিয়ে ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীরকে ঠেলে এগিয়ে নিয়ে গেলে ফেরি ক্যামেলিয়াও অন্য পারে পৌঁছায়।

তিনি জানান, এদিন (শুক্রবার) আর ফেরি চলেনি। রাতেও ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হবে। আগামীকাল সকালে আবার ওই তিনটি ফেরি কাঁঠালবাড়ী ঘাট থেকে শিমুলিয়া ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে আসবে যানবাহন নিয়ে। যদি সব ঠিকমতো চলাচল করে তবেই নিয়মিত ফেরি চলাচল আবার শুরু হবে।

বিআইডাব্লিউটিএ জানিয়েছে, যেখানে রো রো ফেরি বীরশ্রেষ্ঠ জাহাঙ্গীর আটকে গিয়েছিল সেখানে শুক্রবার রাতেই ড্রেজিং করে নদীর গভীরতা বাড়িয়ে দেওয়া হবে। তাই আজ শনিবার থেকে আর ফেরি চলাচলে সমস্যা হবে না।

নৌপথটি স্বাভাবিক করতে লৌহজং টার্নিং চ্যানেলে ড্রেজার দিয়ে খননকাজ চালায় বিআইডাব্লিউটিএ। এ ছাড়া এ নৌপথের বিকল্প চ্যানেল তথা পদ্মা সেতুর ২৫ নম্বর পিলারসংলগ্ন চ্যানেলে খননকাজ চালায় সেতু কর্তৃপক্ষ।

বিআইডাব্লিউটিএর অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. সাইদুর রহমান বলেন, পদ্মা সেতুর ২৫ নম্বর পিলারের কাছে ভালো খননকাজ করে নাব্যতা ফিরিয়ে আনা হয়েছে। লৌহজং চ্যানেল চালু করার জন্য ৩৩ লাখ ঘনমিটার পলি অপসারণের লক্ষ্যে ১৩টি ড্রেজার মোতায়েন করা হয়। এরই মধ্যে প্রায় ছয় লাখ ২০ হাজার ঘনমিটার পলি অপসারণ করা হয়েছে।

নাব্যতা সংকটে গত ২৯ আগস্ট থেকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌপথে ফেরি চলাচল সীমিত করা হয়। পরে ৩ সেপ্টেম্বর থেকে পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যায়। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়ে চালক ও যাত্রীরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা