kalerkantho

সোমবার । ১৩ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১০ সফর ১৪৪২

বসুন্ধরা গ্রুপের ত্রাণ বিতরণ অব্যাহত

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি   

১২ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য বসুন্ধরা গ্রুপের চলমান কর্মসূচির আওতায় মানিকগঞ্জে আরো ৪০০ পরিবার খাদ্য সহায়তা পেয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার হরিরামপুর উপজেলার লেছড়াগঞ্জ, সুতালরি ও আজিমনগর ইউনিয়নে জেলা প্রশাসনের মাধ্যমে প্রতিটি পরিবারের মাঝে ১০ কেজি ওজনের খাদ্য বিতরণ করা হয়। এ নিয়ে এবারের বন্যায় বসুন্ধরা গ্রুপের খাদ্য সহায়তা পেল প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার পরিবার।

ইঞ্জিনচালিত নৌকায় উত্তাল পদ্মা নদী পার হয়ে মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস উপস্থিত থেকে ওই তিন ইউনিয়নে খাদ্য সহায়তা সামগ্রী বিতরণ করেন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন হরিরামপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সাবিনা ইয়াসমিন, সহকারী কমিশনার (ভূমি) বেল্লাল হোসেন এবং স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা। জেলা প্রশাসক সাংবাদিকদের বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে কর্মহীনদের মধ্যে খাদ্যসহ বিভিন্ন সহায়তা দিয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপ। এখন বন্যার মধ্যে সহযোগিতা করছে। সরকারকে সহযোগিতা করে আসছে। যেকোনো দুর্যোগেই অসহায়দের পাশে দাঁড়ায় বসুন্ধরা। অন্য বিত্তবানদের বসুন্ধরার দৃষ্টান্ত অনুসরণের আহ্বান জানান জেলা প্রশাসক।

মানিকগঞ্জে বসুন্ধরা গ্রুপের মানবিক সহায়তার বিষয়টি সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন গ্রুপের প্রধান উপদেষ্টা মাহবুব মোর্শেদ হাসান রুনু। তিনি জানান, এবারের বন্যায় এ পর্যন্ত মানিকগঞ্জে বসুন্ধরা গ্রুপ প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার পরিবারকে খাদ্য সহায়তা দিয়েছে। রোজার ঈদে দুই হাজার পরিবারকে দেওয়া হয়েছে বিশেষ সহায়তা। কোরবানির ঈদে ১৫টি গরুর মাংস বিতরণ করা হয় দুস্থদের মধ্যে। বন্যা ও করোনা পরিস্থিতিতে বসুন্ধরার খাদ্য সহায়তা কর্মসূচি চলবে। কারণ বসুন্ধরার লক্ষ্যই হলো দেশ ও মানুষের কল্যাণে কাজ করা। এটা বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের চিন্তা ও পরিকল্পনার ফসল। বসুন্ধরার এই কর্মসূচিতে সহায়তার জন্য তিনি মানিকগঞ্জের প্রশাসন, রাজনৈতিক দল ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের ধন্যবাদ জানান।

বসুন্ধরা গ্রুপ করোনাভাইরাস দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রীর তহবিলে ১০ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছে; করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের জন্য হাসপাতাল নির্মাণ করেছে। এ ছাড়া বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সুরক্ষা দ্রব্য প্রদান, দেশব্যাপী দুস্থদের খাদ্য সহায়তাসহ বিভিন্ন কর্মসূচি চালাচ্ছে শিল্পপ্রতিষ্ঠানটি।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা