kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৪ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০। ১১ সফর ১৪৪২

করোনা কিটের ৪০০ কোটি টাকা ছাড়

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা টেস্ট কিটসহ মেডিক্যাল সরঞ্জামাদি কেনার জন্য ৪০০ কোটি টাকা ছাড় করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে এই অর্থ ছাড় করেছে মন্ত্রণালয়। তবে এতে সাতটি শর্ত জুড়ে দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

অর্থ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিবালয় অংশে চিকিৎসা ও শল্যচিকিৎসা সরঞ্জামাদি সরবরাহ খাতে ৫০০ কোটি টাকা বরাদ্দ রয়েছে। এই বরাদ্দ থেকে ৪০০ কোটি টাকা স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের আওতাধীন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুকূলে পুনঃ উপযোজনের অনুরোধ জানিয়ে অর্থ বিভাগে চিঠি দেওয়া হয়।

স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের চিঠিতে বলা হয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীন কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের মাধ্যমে সারা দেশে স্থাপিত আরটি-পিসিআর ল্যাবের জন্য টেস্ট কিট, সোয়াব স্টিক প্রভৃতি কেনা বা সংগ্রহ করা হয়। এসব সুরক্ষাসামগ্রী, টেস্ট কিট এবং অন্যান্য সামগ্রী প্রয়োজন অনুযায়ী দেশের বিভিন্ন হাসপাতাল বা স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানে বিতরণ করা হয়। তাই ৪০০ কোটি টাকা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের অনুকূলে চিকিৎসা ও শল্যচিকিৎসা সরঞ্জামাদি সরবরাহ খাতে পুনঃ উপযোজন করা প্রয়োজন।

করোনা টেস্ট কিটসহ মেডিক্যাল সরঞ্জামাদি কেনার জন্য স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অনুকূলে এ অর্থ ছাড়ে সম্মতি দিয়েছে অর্থ বিভাগ। তবে এতে জুড়ে দেওয়া হয়েছে শর্ত। অর্থ বিভাগের দেওয়া শর্তে বলা হয়েছে, অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে দ্য পাবলিক প্রকিউরমেন্ট অ্যাক্ট ২০০৬ এবং দ্য পাবলিক প্রকিউরমেন্ট রুলস ২০০৮ অনুসরণসহ যাবতীয় আর্থিক বিধি-বিধান যথাযথভাবে পালন করতে হবে। অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে কোনো অনিয়ম উদ্ঘাটিত হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে।

এতে আরো বলা হয়, এ অর্থ প্রস্তাবিত খাত ছাড়া অন্য খাতে ব্যয় করা যাবে না। অব্যয়িত অর্থ (যদি থাকে) যথাসময়ে সমর্পণ করতে হবে। পুনঃ উপযোজনকৃত অর্থ চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটে সংশ্লিষ্ট কোডে সমন্বয় করতে হবে। জারিতব্য সরকারি আদেশে সমন্বয় কোড উল্লেখ করতে হবে এবং উপযোজনকৃত অর্থ অব্যয়িত অর্থের মধ্যে সীমিত রয়েছে, তা নিশ্চিত করে বিল পরিশোধ করতে হবে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা