kalerkantho

শনিবার । ১১ আশ্বিন ১৪২৭ । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৮ সফর ১৪৪২

করোনা উপসর্গ

শিক্ষক চিকিৎসকসহ সাতজনের মৃত্যু

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৮ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিক্ষক চিকিৎসকসহ সাতজনের মৃত্যু

নতুন করোনাভাইরাস (কভিড-১৯) সংক্রমণের উপসর্গ (জ্বর, সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্ট) নিয়ে পাঁচ জেলায় গত বৃহস্পতিবার ও গতকাল শুক্রবার সাতজনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁদের মধ্যে আছেন শিক্ষক, চিকিৎসক ও সাবেক সেনা সদস্য। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

নড়াইল : জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বৃহস্পতিবার রাতে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান নড়াইলের চিকিৎসক ইয়ানুর হোসেন (৩৭)। তিনি নড়াইল সদর উপজেলার গোবরা উপ-স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উপসহকারী মেডিক্যাল অফিসার ও আউড়িয়া এলাকার বাসিন্দা। নড়াইল শহরে স্ত্রী ও শিশুসন্তানকে নিয়ে থাকতেন। নড়াইল সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. মশিউর রহমান বাবু জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে ডা. ইয়ানুর সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছিলেন।

বাগেরহাট : গতকাল ভোরে বাগেরহাট সদর হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় সংগীত শিক্ষক রিটন মণ্ডলের (৪০)। তিনি জেলার মোরেলগঞ্জ উপজেলার ঢেউতলা গ্রামের লক্ষ্মীকান্ত মণ্ডলের ছেলে।

ঝালকাঠি : বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বৃহস্পতিবার রাতে মারা যান ঝালকাঠি শহরের বাহের রোডের আবদুল আলিমের স্ত্রী লাভলী আক্তার (৩২)। পরিবার জানায়, জ্বর, সর্দি, কাশি ও বুকে ব্যথা নিয়ে বুধবার বিকেলে করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছিলেন লাভলী। তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

কোটালীপাড়া : গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার পূর্ণবতী গ্রামে নিজ বাড়িতে গতকাল সকালে মৃত্যু হয় জেনারদ্দিন হাওলাদারের ছেলে ও সাবেক সেনা সদস্য ফায়েকুজ্জামান হাওলাদারের (৫৩)। 

কুমিল্লা : গতকাল সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের কভিড-১৯ ইউনিটে জ্বর, শ্বাসকষ্ট, কাশি নিয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুজন মারা যান। তাঁরা হলেন সদর উপজেলার ফরিদ মাস্টার (৭০) ও সদর দক্ষিণ উপজেলার নেউরা এলাকার মো. ফারুক হোসেন (৪০)।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা