kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ কার্তিক ১৪২৭। ২০ অক্টোবর ২০২০। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আপিল বিভাগের রায় প্রকাশিত

নদী-জলাশয়ের জায়গা বিক্রি-লিজ দেওয়া যাবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কোনো নদী-জলাশয়ের জায়গা বিক্রি করা যাবে না বা লিজ দেওয়া যাবে না বলে রায় দিয়েছেন আপিল বিভাগ। আদালত বলেছেন, সিদ্ধান্তের ক্ষেত্রে সরকারকে অবশ্যই অত্যন্ত সতর্ক থাকতে হবে। তবে নদী দখল ফৌজদারি অপরাধ, নদী দখলকারী ব্যক্তিকে নির্বাচন এবং ব্যাংকঋণ পাওয়ার ক্ষেত্রে অযোগ্য ঘোষণা করে হাইকোর্টের রায় সংশোধন করেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত। এই তিনটি বিষয়ে হাইকোর্টের নির্দেশনাকে আদালতের অভিমত হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। আদালত বলেছেন, আইন প্রণয়ন করার সম্পূর্ণ এখতিয়ার জাতীয় সংসদের। আদালত সংসদকে আইন করতে নির্দেশ দিতে পারেন না। তবে কোনো আইন সংবিধান পরিপন্থি হলে তা বাতিল করতে পারেন। কোনো আইন সংশোধনের জন্য আদালত মতামত দিতে পারেন।

তুরাগ নদের তীরের অবৈধ দখল ও নদী ভরাট বন্ধে সম্প্রতি প্রকাশিত আপিল বিভাগের রায়ে এসব কথা বলা হয়েছে। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগের চার বিচারপতির বেঞ্চ গত ১৭ ফেব্রুয়ারি রায় ঘোষণা করলেও সম্প্রতি এই রায় প্রকাশিত হয়েছে। রায়ে আরো বলা হয়, কোনো জরিপের সময় প্রথমেই সিএস ম্যাপে জরিপ (সার্ভে) করতে হবে। পরে আরএস ম্যাপে জরিপ করতে হবে।

গাজীপুরের তুরাগ নদের তীরের অবৈধ দখল ও নদী ভরাট বন্ধের নির্দেশনা চেয়ে ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর রিট আবেদন করে মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি)। এই রিট আবেদনে একই বছরের ৯ নভেম্বর হাইকোর্ট রুল জারি করেন। পরে তুরাগ দখল করা নিয়ে বিচার বিভাগীয় তদন্ত হয়। এই তদন্ত প্রতিবেদন হাইকোর্টে দাখিল করা হয়। এরই ধারাবাহিকতায় রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে গত বছরের ৩ ফেব্রুয়ারি রায় দেন হাইকোর্ট। রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে তুরাগ নদের তীরে অবস্থিত নিশাত জুটমিলস কর্তৃপক্ষ। তাদের আবেদন নিষ্পত্তি করে গত ১৭ ফেব্রুয়ারি রায় দেন আপিল বিভাগ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা