kalerkantho

মঙ্গলবার । ৪ কার্তিক ১৪২৭। ২০ অক্টোবর ২০২০। ২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

করোনায় চিকিৎসক-নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের আবাসন

অবশেষে মিলেছে ছয় সরকারি ডরমিটরি

বাকিরা পাবেন থাকা-খাওয়ার ভাতা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতালে দায়িত্ব পালনকারী চিকিৎসক, নার্স ও অন্য স্বাস্থ্যকর্মীদের থাকার জন্য অবশেষে সরকারি ছয়টি ডরমিটরির ব্যবস্থা করেছে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। এর আগে কয়েকটি ফাইভ স্টার ক্যাটাগরিসহ বিভিন্ন হোটেলে তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। কিন্তু এর বিল পরিশোধ নিয়ে নানামুখী জটিলতা ও অভিযোগ ওঠে। এর পরিপ্রেক্ষিতে হোটেলের ব্যবস্থা বাতিল করে ভাতা দেওয়ার ব্যবস্থা চালু করা হয় গত মাসের শেষ সপ্তাহে। তা নিয়েও চিকিৎসকদের মধ্যে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হলে সবশেষে আপাতত ছয়টি সরকারি ডরমিটরি ঠিক করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের উপসচিব ড. বিলকিস বেগম স্বাক্ষরিত এক নির্দেশনায় এ তথ্য জানানো হয়। গতকাল বুধবার এই নির্দেশনার তথ্য প্রকাশ হলেও তা স্বাক্ষরের তারিখ দেওয়া আছে ৩ আগস্ট। নির্দেশনায় ঢাকার বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (প্রশাসন একাডেমি), বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ ম্যানেজমেন্ট (বিআইএএম), জাতীয় পরিকল্পনা ও উন্নয়ন একাডেমি (এনএপিডি), ন্যাশনাল একাডেমি অব এডুকেশনাল ম্যানেজমেন্ট (এনএইএম), টিচার্স ট্রেনিং কলেজ (টিটিসি) ও জাতীয় স্থানীয় সরকার ইনস্টিটিউট (এনআইএলজি)—এই ছয়টি প্রতিষ্ঠানের ডরমিটরির নাম উল্লেখ করা হয়।

নির্দেশনায় সংশ্লিষ্ট চিকিৎসক, নার্স ও অন্যান্য কর্মীকে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ডরমিটরির প্রতিটির জন্য আলাদা আলাদা করে নিযুক্ত ফোকাল পার্সনদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে বলা হয়েছে। খাওয়ার ব্যবস্থাও করবেন ওই ফোকাল পার্সনরা।

এর আগে গত ২৯ জুলাই স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আব্দুল মান্নান স্বাক্ষরিত এক পরিপত্রে হোটেলের ব্যবস্থা বাতিল করা হয়। নতুন নির্দেশনা অনুসারে যাঁরা ওই ছয়টি ডরমিটরিতে থাকতে পারবেন না, তাঁদের নির্ধারিত হারে ভাতা দেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে ঢাকার মধ্যে দায়িত্বপালনকারী একজন চিকিৎসক দৈনিক দুই হাজার ও ঢাকার বাইরে এক হাজার ৮০০; একজন নার্স ঢাকার মধ্যে এক হাজার ২০০ ও ঢাকার বাইরে এক হাজার এবং একজন স্বাস্থ্যকর্মী ঢাকার মধ্যে ৮০০ ও ঢাকার বাইরে ৬৫০ টাকা ভাতা পাবেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা